অক্টোবরের মধ্যে ৩০ হাজার বীরমুক্তিযোদ্ধা পাবেন সরকারি বাড়ি’

0
90

নিজস্ব প্রতিবেদক: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আবাসন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক এম ইদ্রিস সিদ্দিকী বলেছেন, আগামী অক্টোবর মাসের মধ্যে প্রতি উপজেলায় ৪০ জন করে মোট ৩০ হাজার মুক্তিযোদ্ধা সরকারি বাড়ি পাবেন। যার প্রথম পর্যায়ে প্রতিটি উপজেলায় ১২টি করে বাড়ি তৈরি করে দেয়া হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ের বাড়ি আগামী ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন।
মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিস কক্ষে প্রকল্পের অধীনে প্রথম পর্যায়ে বাড়ি প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।
এম ইদ্রিস সিদ্দিকী বলেন, যারা বাড়ি পাচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ কেউ অভিযোগ করে কোন হয়রানি করবেন না। বীরঙ্গনাদের সবার নাম দ্বিতীয় পর্যায়ে অবশ্যই প্রস্তাব করতে হবে। তাদের নিজেদের জমি না থাকলে সরকার জমির ব্যবস্থা করে তাদের বাড়ি করে দেবে। প্রথম পর্যায়ে ঘর দেয়ার ক্ষেত্রে যুদ্ধাহতদের নামের বিষয় অস্পষ্ট থাকলেও এখন সেটা স্পষ্ট করা হয়েছে। তারাও সরকারি এই বাড়ি পাবেন।
উপজেলা প্রশাসন ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর চৌগাছার আয়োজনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইরুফা সুলতানার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ছিলেন সড়ক ও সেতু বিভাগের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী আমিনুর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ড. মোস্তানিছুর রহমান, চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ঐক্য পরিষদের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার প্রমুখ।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইশতিয়াক আহমেদ ও উপজেলা প্রকৌশলী মুনছুর রহমান বলেন, চৌগাছায় প্রথম পর্যায়ে চৌগাছায় ১২টি বাড়ি দেয়া হচ্ছে। তার দরপত্র গ্রহণ করা হয়েছে। ৩০ ডিসেম্বর কাজের ঠিকাদার নির্ধারণ করা হবে। এরপরই বাড়ি নির্মাণ কাজ শুরু হবে। উভয়ে কর্মকর্তাই আশা প্রকাশ করেন আগামী ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসের আগেই এই বাড়ি নির্মাণ সম্পন্ন হবে।