‘অপারেশন ইগল হান্ট’ স্থগিত- বৃহস্পতিবার ভোরে আবার শুরু

0
329

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে যে বাড়িটি ঘিরে রেখেছে সেখানে চালানো অভিযান স্থগিত করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ‘অপারেশন ইগল হান্ট’ নামের এই অভিযানটি বৃহস্পতিবার ভোরে আবার শুরু হবে।

বুধবার রাত ৯টার দিকে প্রেস ব্রিফিংয়ে সোয়াতের কর্মকর্তা উপ-পুলিশ কমিশনার প্রলয় কুমার জোয়ার্দার জানান, রাতের মতো অপারেশন স্থগিত করা হয়েছে। সকালে আবার চলবে।

পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ওই বাড়ির ভেতর থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি একটি গ্রেনেড নিক্ষেপ করা হয়েছে এবং ৪/৫টি বিকট বিস্ফোরণও ঘটানো হয়েছে।

বিদ্যুতের সংযোগ কেটে দেয়ায় বাড়িটির ভেতরের অবস্থা কী তা জানা যাচ্ছে না। জেনারেটর দিয়ে আলোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এখনো অবস্থান নিয়ে আছেন বলে জানান তিনি।

এর আগে ঢাকা থেকে পুলিশের বিশেষায়িত টিম ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায়। বুধবার সন্ধ্যার পর সেখানে অভিযান শুরু হয়। চলে প্রায় দুই ঘণ্টা। অভিযানের মধ্যে ওই আস্তানার ভেতর থেকে মুহুর্মুহু গুলির শব্দ শোনা যায়।

জানা গেছে, যে বাড়িটিতে অভিযান চালানো হচ্ছে ওই বাড়ির মালিকের নাম জেন্টু হাজি। তবে তিনি ও তার পরিবারের কোনো সদস্য সেখানে থাকেন না। তিনি পাশের একটি বাড়িতে পরিবার নিয়ে থাকেন। দুই মাস আগে জেন্টু হাজি একই এলাকার আফসার আলীর ছেলে আবুকে ভাড়া ছাড়াই ওই বাসায় থাকতে দেন। আবু স্থানীয় বাজারে মসলা বিক্রি করেন। তিনি স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে সেখানে থাকেন।

এর আগে বিকালে আবুর চাচি চামেলি বেগম, ছোট ভাইয়ের স্ত্রী রুনা বেগমকে নিয়ে তার মা ওই বাড়ির দরজার সামনে যান। এ সময় মাইকে তারা আবুকে বাড়ির বাইরে বের হয়ে আসার আহ্বান জানান। বেশ কয়েকবার আহ্বান জানানোর পরও ভেতর থেকে কোনো সাড়া মেলেনি।

পুলিশ জানায়, ওই বাড়ির দেওয়াল ভেঙে অভিযান শুরু হয়েছে। সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার কথা বিবেচনায় নিয়ে সকাল ছয়টা থেকে ত্রিমোহনী শিবনগর ও আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে উপজেলা প্রশাসন। পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট এলাকায় ১৪৪ ধারা বজায় থাকবে। বিষয়টি এলাকায় মাইকিং করে জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

এর আগে ভোরে কানসাট ইউনিয়নের আব্বাস বাজার এলাকার তিনটি বাড়ি ঘেরাও করে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা। তবে সেখানে কোনো জঙ্গির সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরে চককীর্তি ইউনিয়নের ত্রিমোহী চাতরা বাজারের শিবগনগর এলাকায় অন্য একটি বাড়ি ঘেরাও করে তল্লাশি চালাতে যায় তারা। এ সময় বাড়িটি থেকে পুলিশকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড ও গুলি ছোঁড়া হয়। জবাবে কাউন্টার টেরোরিজমের সদস্যরা কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here