অবশেষে পরিচয় মিলেছে ঝিনাইদহে গভীর রাতে নির্যাতনে হত্যা করা সেই যুবকের

0
338

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহ শহরের সোনালীপাড়ার একটি পরিত্যাক্ত বাড়ির মধ্যে নুর আলম (১৮) নামে এক যুবককের পিটিয়ে হত্যা করেছে। নুর আলম আদর্শপাড়ার হারুন অর রশিদের ছেলে।

জানাগেছে, মাগুরার শীবরামপুর গ্রামের হারুন অর রশিদের বাপ-দাদার বসবাস ছিলো। বেশ কিছু বছর পূর্বে মাগুরা ছেড়ে ব্যাবসায়ীক কারণে হারুন অর রশিদ তার পরিবার নিয়ে ঝিনাইদহ সদরের আদর্শপাড়ার কচাঁতলার নুরানী মাদ্রাসার পিছনে ভাড়াটিয়া বাসায় বসবাস করে আসছিলো।

নিহত যুবকের বাবা হারুন অর রশিদ জানান, তার ছেলে নতুন হাটখোলা এলাকায় রাহাতের গ্যারেজে কাজ করতো। ৬ দিন ধরে বেকার ছিল। গত ১৫ দিন আগে তাকে ঝিনাইদহ জেল হাজত থেকে বের করা হয়েছে তার পর থেকেই সে নিখোঁজ ছিলো।

নুর আলমের বন্ধুরা তাকে হত্যা করতে পারে এমন সন্দেহ করেন তিনি। তবে মহল্লাবাসি বলছেন, জনাকীর্ন আবাসিক এলাকায় কি ভাবে এমন হত্যাকান্ড ঘটলো তা তদন্ত করে দেখা উচিৎ। মহল্লাবাসি আরো বলেন, নুর আলম মাদক সেবন ও মাদক ব্যাবসার সাথে জড়িত ছিলো। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলমান অবস্থায় ছিলো।

ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ জানান, বৃহস্পতিবার সকালে সোনালীপাড়ার মসজিদের সামনের একটি নির্মানাধীন ভবনে অজ্ঞাত যুবকের লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী তাদের খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। দুপুরে হাসপাতাল মর্গে নিহতর স্বজনরা লাশটি নুর আলমের বলে সনাক্ত করে। পুলিশের ধারণা বুহস্পতিবার গভীর রাতে এই হত্যাকান্ড সংঘটিত করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here