অভয়নগরে ইউপি মেম্বার হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত গুলি উদ্ধার, আটক ৮

0
89

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি : অভয়নগরে সুন্দলী ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত মেম্বার উত্তম সরকার হত্যাকা-ে চরমপন্থী এক নেতা, সাবেক মেম্বারসহ সন্দেহভাজন ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। হত্যাকা-ে ব্যবহৃত তিনটি তাজা গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ।
আটক সন্দেহভাজন ৮ জন হলেন- উপজেলার সুন্দলী ইউনিয়নের ছোট সুন্দলী গ্রামের মৃত নিতাই বিশ্বাসের ছেলে চরমপন্থী নেতা প্রজিৎ কুমার বিশ্বাস ওরফে বুলেট, সাবেক মেম্বার অর্ধেন্দু মল্লিক, নিহতের কাকা হরিশপুর গ্রামের দীপংকর সরকার, ফুলেরগাতী গ্রামের সঞ্চিত রায়, সুন্দলী গ্রামের অশোক বিশ্বাস, রামসরা গ্রামের দীপংকর মন্ডল, গাবুখালী গ্রামের সুমন, খুলনার ডুমুরিয়া গ্রামের বাদল।
জানা গেছে, হত্যাকা-ের পরের দিন মঙ্গলবার রাতে নিহত উত্তম সরকারের স্ত্রী শ্রাবন্তী সরকার অভয়নগর থানায় অজ্ঞাতনামা আসামিদের নামে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই রাতে অভয়নগর থানা ও যশোর ডিবি পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন এলাকা থেকে সন্দেহভাজন ৮ জনকে আটক করেন। বুধবার (১২ জানুয়ারি) রাতে আটক প্রজিৎ কুমার বিশ্বাস ওরফে বুলেটের স্বীকারোক্তি মোতাবেক সুন্দলী ইউনিয়নের ছোট সুন্দলী গ্রামে অভিযান চালিয়ে তার বাড়ি থেকে হত্যাকা-ে ব্যবহৃত ৩টি তাজা গুলি উদ্ধার করে পুলিশ।
বুধবার রাতে সুন্দলী ইউনিয়নসহ বিভিন্ন এলাকায় অভয়নগর থানা ও যশোর ডিবি পুলিশের যৌথ অভিযানে গুলি উদ্ধার ও সন্দেহভাজন কয়েকজনকে আটকের কথা স্বীকার করেন অভয়নগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মিলন কুমার মন্ডল। বিস্তারিত তথ্যের জন্য যশোর জেলা ডিবি পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করেন তিনি।
এ ব্যাপারে যশোর জেলা ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রুপম সরকার এবং অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম শামীম হাসানের মোবাইল ফোনে বার বার যোগাযোগ করা হলে ফোন রিসিভ করেননি।
প্রসঙ্গত, গত সোমবার (১০ জানুয়ারি) রাতে নিজ বাড়ি ফেরার পথে অভয়নগরের সুন্দলী ইউনিয়নের হরিশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য (মেম্বার) উত্তম সরকার।