অভয়নগরে ভৈরব নদে ডুবে যাওয়া কার্গো ১৫ দিনে উদ্ধার , নৌযান চলাচল স্বাভাবিক

0
88

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি : অভয়নগরে ভৈরব নদে ডুবে যাওয়া কার্গো ১৫ দিনে উদ্ধার করতে সফল হয়েছে নৌকতৃপক্ষ। নদে এখন নৌযান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। চলতি মাসের প্রথম দিকে ভৈরব নদে ৬৮০ মেট্রিক টন সরকারি ইউরিয়া সার বোঝাই এমভি শারিব বাঁধন নামে কার্গো ডুবে যায়। এরপর থেকে উদ্ধার কাছের চেষ্ঠা অব্যহত থাকে। অব শেষে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে কার্গোটি উদ্ধার করে নওয়াপাড়া নদী বন্দর কৃর্তপক্ষ ।
উল্লেখ্য, ভৈরব নদে ৬৮০ মেট্রিক টন সরকারি ইউরিয়া সার বোঝাই এমভি শারিব বাঁধন নামে ডুবে যায়। উদ্ধার কাজ শুরু না হওয়ায় নৌযান চলাচল ব্যহত হয়। ১৫ দিনের মধ্যে জাহাজ উদ্ধারের সময় বেঁধে দিয়েছিল নৌবন্দর কর্র্তৃপক্ষ। টোটাল শিপিং লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠান বিসিআইসির কার্যাদেশে কাতার থেকে ইউরিয়া সার আমদানি করে। গত ২১ জানুয়ারি চট্রগ্রাম বন্ধরে থেকে এমভি শারিব বাঁধন নামে একটি কার্গোজাহাজ ৬৮০ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার লোড করে নওয়াপাড়া নদীবন্দর এলাকায় পৌঁছালে ভৈরব নদে ডুবে যায়। ডুবে যাওয়া জাহাজে ৬৮০ মেট্রিক টন বা ১৩ হাজার ৬০০ বস্তা সার ছিল। যার মূল্য আনুমানিক ১কোটি ২০ লাখ টাকা। এমভি শারিব বাঁধন জাহাজটি নদের মাঝামাঝি স্থানে ডুবে থাকে। নৌবন্দর কর্তৃপক্ষ ডুবে যাওয়া জাহাজের দুই পাশে লাল রঙের পতাকা টানিয়ে নৌযান চলাচলে শতর্ক করে দিয়েছিল । খুলনা নৌসংরক্ষণ ও পরিচালন বিভাগের যুগ্ম পরিচালক মো. আশরাফ হোসেন বলেন, নদে ডুবে যাওয়া এমভি শারিব বাঁধন জাহাজ উদ্ধারে সহায়তার প্রস্তাব দেওয়া হলেও মালিক পক্ষ তা নাকচ করে । পরে মালিক পক্ষ নিজ উদ্যোগে উদ্ধার কাজ করবেন বলে জানায়। অবশেষে আমরা কার্গোটি উদ্ধার করেছি।