আকবরের মৃত্যুতে পূর্ণিমার শোক, বললেন অনেক কথা

0
25

বিনোদন ডেস্ক : ‘ইত্যাদি’ খ্যাত সংগীতশিল্পী আকবর মারা গেছেন। রবিবার (১৩ নভেম্বর) দুপুর সোয়া ৩টার দিকে গায়কের মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেন তার মেয়ে অথৈ।

আকবরের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে দেশের শোবিজ অঙ্গনে। সংগীতের পাশাপাশি নাটক-সিনেমার তারকারাও শোক জানাচ্ছেন এই গায়কের জন্য। কিশোর কুমারের গাওয়া ‘একদিন পাখি উড়ে যাবে’ দিয়ে ইত্যাদিতে পরিচিত পেলেও প্রথম মৌলিক গান ‘তোমার হাত পাখার বাতাসে’র মাধ্যমে তুমুল জনপ্রিয়তা পান আকরব।

সেই গানটির ভিডিওতে আকবরের স্ত্রী রূপে অভিনয় করেন তখনকার সবচেয়ে জনপ্রিয় নায়িকা পূর্ণিমাও। আকবরের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন তিনি। করেছেন সে সময়ের স্মৃতিচারণ।

গায়ক আকবর আর নেই

রবিবার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে পূর্ণিমা বলেন, আকবর মারা গেছেন, এটা আমার জন্য অবশ্যই খারাপ লাগার বিষয়। দীর্ঘদিন উনি অসুস্থ ছিলেন। চিকিৎসার জন্যও নানান বেগ পেতে হয়েছে। আমি উনার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।

আকবরের সঙ্গে সেই গানের ভিডিওতে কাজ করার অভিজ্ঞতাও স্মরণ করেন এই তারকা। তার ভাষ্যে, আমার সঙ্গে আকবরের ওই একটাই কাজ হয়েছে। সেটা ২০০৩ সালের দিকে। এটা সম্ভব হয়েছেন হানিফ সংকেত দার জন্যই। আকবর যখন ‘একদিন পাখি উড়ে’ করে এতো জনপ্রিয়তা পান এরপর হানিফ সংকেত দা এই মিউজিক ভিডিওটির চিন্তা করেন। তখনকার জনপ্রিয় নায়িকা হিসেবেই হয়তো আমাকে প্রস্তাব দেন। তখন কাজটি করি। জনপ্রিয়তার দিক থেকে বলা যায় এটি ‘ইত্যাদি;তে প্রচারিত আকবরের প্রথম গানটিকেও ছাড়িয়ে যায়। সবচেয়ে বড় কথা এটি ছিলো তার নিজের মৌলিক গান। গানটির জন্য আমিও মানুষের অনেক ভালোবাসা পেয়েছি।

পূর্ণিমা আরো বলেন, কাজটি করার সময় তিনি বেশ নার্ভাস ছিলেন। তার জীবনে এটা অনেক বিশাল একটি কাজ। আমার সঙ্গে বসে আছেন তিনি। আমি হাত পাখার বাতাস করছি তাকে, খাওয়াচ্ছি। হাত ধরারও কিছু দৃশ্য ছিলো। এত বেশি নার্ভাস ছিলেন। পাশে বসবেন কী বসবেন না! আরো অনেক সংশয়ে ছিলো। কিন্তু আমি আর সংকেত দা তাকে যেভাবে বুঝিয়েছি সেভাবেই শেষ পর্যন্ত কাজটি করেছেন। বোঝাই যায়নি এই ধরনের কাজ এটাই তার প্রথম।

এই নায়িকা আরো জানান, সেই কাজের পর আকবরের সঙ্গে তার আর কোনো কাজ হয়নি। তবে বিভিন্ন শোতে একাধিকবার দেখা হয়েছে। দেখা হলেই আকবর তাকে সালাম দিতেন। সম্মান করতেন। মানুষটিকে হারানোর শোক ছুঁয়ে গেছে তাকে।

দুই বছর ধরে ডায়াবেটিস, জন্ডিস, কিডনি, রক্তের প্রদাহসহ আরো নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন আকবর। দুটি কিডনি বিকল হয়ে যাওয়ায় তার শরীরে পানি জমে ডান পা নষ্ট হয়ে গিয়েছিলো। সপ্তাহ দুই আগে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে সেই পা কেটে ফেলা হয়। পা কাটার পর তার কিডনি ও লিভারের সমস্যা আরো বেড়ে যায়।

শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত ৫ নভেম্বর দুপুরে তাকে রাজধানীর ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালে (বারডেম) ভর্তি করা হয়। এরপর আশঙ্কাজনক অবস্থায় ৯ নভেম্বর ভোরে তাকে আইসিইউতে নিয়ে যাওয়া হয়। শেষ পর্যন্ত সেখান থেকে আর ফিরতে পারলেন না এই গায়ক।

উল্লেখ্য, দেড় যুগ আগে বিটিভির জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’তে ‘একদিন পাখি উড়ে যাবে যে আকাশে’ গানটি গেয়ে তুমুল হইচই ফেলে দেন তখনকার পেশায় রিকশাচালক আকবর। তবে সেই গান বদলে দেয় তার জীবন। রাস্তায় রিকশায় প্যাডেল মারা ছেড়ে গানে মনোনিবেশ করেন তিনি। এরপর ‘তোমার হাত পাখার বাতাসে’ শিরোনামে ইত্যাদির জন্য মৌলিক গান করেন তিনি। এটিও পায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা। সেই থেকে নতুন নতুন গান প্রকাশের পাশাপাশি দেশে-বিদেশের মঞ্চেও নিয়মিত গাইতে থাকেন আকবর।