আমাদের বেতন ভাতা পোশাক সব কিছু জনগনের ট্যাক্সের টাকায়-এসপি প্রলয় কুমার জোয়ার্দার

0
20

বেনাপোল প্রতিনিধি : দক্ষ পুলিশ সমৃদ্ধ দেশ’ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ” এ শ্লোগানে যশোর জেলা পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ার্দার বলেছেন পুলিশ কারো শত্রু নয়, পুলিশ সকলের বন্ধু। চাঁদাবাজ, ছিনতাইকারী, মাদক ব্যবসায়িরা সাবধান হয়ে যান। আর এদের ব্যাপারে আমাদের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করুন। আগে যে যা করেছেন এখন থেকে সাবধান হয়ে অন্যান্য পেশায় নিয়োজিত হয়ে রোজগার করুন। আর নিরীহ জনগনের উপর যদি কেউ চাঁদাবাজি করেন তাহলে তার ফলাফল ও শুভ হবে না। আমরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশে সকল ধর্ম বর্ণের লোক মিলে মিশে বসবাস করব। পুলিশ সেই জনগনকে সেবা দিবে । এবং সংশ্লিষ্ট থানা ওই এলাকার জনগনের জানমালের দায়িত্ব নিয়ে কাজ করে যাবে। আমাদের এই পোশাক সহ বেতন ভাতা যাই পাই সবকিছু জনগনের টাকায়। কাজেই জনগনের নিরাপত্তার দায়িত্বও পুলিশের।
বেনাপোল পোর্ট থানার সামনে ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে এসব কথা বলেন জেলা পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ার্দার।

শনিবার বেলা ১১টার সময় বেনাপোল পোর্ট থানার সামনে শার্শা থানা ও বেনাপোল পোর্ট থানা আয়োজিত ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শার্শা থানার ওসি মামুন খান।

প্রধান অতিতি প্রলয় কুমার জোয়ার্দার বলেন, জাতির জনকের কন্যা বর্তমান প্রধান মন্ত্রী পুলিশের যে বেতন ভাতা বৃদ্ধি করেছে তাতে কোন পুলিশ সদস্যর দুর্নিতীর সাথে জড়িত হওয়ার কথা নয়। যদি কোন অফিসার বা পুলিশের কোন সদস্য এরকম দুর্নীতি ও চাঁদাবাজির সাথে জড়িত হয় তাহলে আপনারা সরাসরি এই অনুষ্ঠানে বলতে পারেন নির্দিধায়। কোন রকম ভয় পাওয়ার কিছু নেই। আমরা আপনাদের সাথে আছি। আমরা সমাজ থেকে একেবারে মাদক চাঁদাবাজি নিঃশেষ করতে পারব না। তবে তা কমিয়ে আনতে পারব। আস্তে আস্তে সব নির্মুল করা সম্ভব হবে। যেখান যারা মাদক ব্যবসা ও জুয়ার সাথে অস্ত্র ব্যবসার সাথে জড়িত তারা অতিদ্রুত ভালো হয়ে যাবেন আশা রাখি। মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন আজ বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে এদেশ যুদ্ধ করে স্বাধীন করেছেন বলে আমি এসপি। তাই স্বাধীন সার্বোভৌম রাষ্ট্রে সকল নাগরিক এর জান মালের দায়িত্ব থেকে এড়িয়ে যেতে পারে না পুলিশ বাহিনী।

ওপনে হাউজের সকল শ্রেনী পেশার মানুষের অভিযোগ তিনি শোনেন ও তার সমাধানের উত্তর দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বেনাপোল বন্দর পরিচালক মনিরুজ্জামান মিয়া, শার্শা উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, শার্শা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নারানচন্দ্র পাল, নাভারন ডিগ্রি কলেজের অধ্যাক্ষ ইব্রাহীম খলিল, নাভারন সার্কেল এ এসপি জুয়েল ইমরান বেনাপোল পৌর সভার সাবেক প্যানেল মেয়র সাহাবুদ্দিন মন্টু, আওয়ামীলীগ নেতা অহিদুজ্জামান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফার হোসেন ।এছাড়া মাদ্রাসা, স্কুল, কলেজ এর শিক্ষক, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি,রাজনৈতিক সামাজিক নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তা কর্মচারী সহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ ।