ইজতেমায় যাবেন না সা’দ, থাকবেন কাকরাইল মসজিদে

0
344

নিজস্ব প্রতিবেদক : দিল্লির নেজামুদ্দিনের মুরব্বি মাওলানা সা’দ কান্ধলভিকে কেন্দ্র করে তাবলিগ জামাতের চলমান সংকটের সমাধান হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানিয়েছেন, মাওলানা সা’দ ইজতেমা মাঠে যাবেন না। ইজতেমা চলাকালীন তিনি কাকরাইল মসজিদে থাকবেন, পরে সুবিধাজনক সময়ে দেশে ফিরে যাবেন।
বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মাওলানা সা’দকে ঘিরে তাবলিগ জামাতের বিবদমান দু’পক্ষ এবং কওমি মাদ্রাসাসহ জ্যেষ্ঠ আলেমদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকের পর তিনি এ কথা জানান।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ‘মাওলানা সাদের বক্তব্য নিয়ে তাবলিগ জামাতের মুরব্বি ও আলেমদের মধ্যে মতপার্থক্য সৃষ্টি হয়েছিল। এই বৈঠকে দুই পক্ষের আলোচনার মাধ্যমে সুষ্ঠু সমাধান হয়েছে। উভয়পক্ষ এ সমঝোতা প্রস্তাব মেনে নিয়েছেন।’
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ইজতেমার বিষয়ে সরকার কখনোই হস্তক্ষেপ করেনি, এবারও করবে না। ইজতেমার নিরাপত্তায় সব ধরনের সহযোগিতা বরাবরের মতো এবারও দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, এ ইস্যুকে ঘিরে যারা রাস্তা-ঘাটে নেমেছিলেন আশা করছি তারাও আজ ফিরে যাবেন। আর মাওলানা সা’দ যে মন্তব্য করেছেন তার যৌক্তিকতা নিয়ে আলেমরা নিজেরা বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবেন। এ বিষয়ে সরকারের কোনও বক্তব্য নেই।
এ বৈঠকে গুলশান জামে মসজিদের খতিব ও যাত্রাবাড়ী মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মাহমুদুল হাসান মধ্যস্থতাকারী হিসেবে নেতৃত্ব দেন। এতে তাবলিগ জামাতের ১১ সদস্যের শুরা সদস্যের প্রায় সবাই অংশ নেন। শারীরিক অসুস্থতার কারণে অন্তত দু’জন অংশ নিতে পারেননি বলে জানা গেছে। বৈঠকে আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক উপদেষ্টা শেখ আব্দুল্লাহও উপস্থিত ছিলেন।
এ বৈঠকে বেফাকের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাওলানা আশরাফ আলী, যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা মাহফুজুল হক, গাজীপুরের কাপাসিয়ার দেওনা পীর সাহেব অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান ছিলেন। মাওলানা সা’দের পক্ষে ছিলেন বাংলাদেশে তাবলিগ জামাতের শুরা সদস্য মাওলানা সৈয়দ ওয়াসিফ ইসলামের নেতৃত্বে তিন জন মুরব্বি।
উল্লেখ্য, দিল্লির নিজামুদ্দিনের মুরব্বি মাওলানা সা’দ কান্ধলভির ইজতেমায় অংশ নেওয়াকে ঘিরে গতকাল বুধবার (১০ জানুয়ারি) থেকে চরম অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। তাকে প্রতিহত করতে তাবলিগ জামাতের একটি পক্ষ এবং কওমি মাদ্রাসার আলেম ও শিক্ষার্থীরা গতকাল থেকে আন্দোলন করছেন। এ অবস্থায় অচলাবস্থা নিরসনে উপায় খুঁজে বের করতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের আহ্বানে সচিবালয়ের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বৈঠকে বসেন তাবলিগ জামাতের বিবদমান দু’পক্ষ এবং জ্যেষ্ঠ কওমি আলেমরা। বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে তিনটায় সচিবালয়ে অবস্থিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ওই বৈঠক শুরু হয়ে মাগরিবের নামাজের কিছুক্ষণ আগে শেষ হয়।
সম্প্রতি কওমি শিক্ষা নিয়ে ‘বিতর্কিত’ মন্তব্যের জের ধরে তাবলিগ জামাতের দিল্লির মুরব্বি মাওলানা সা’দের বিরুদ্ধে অবস্থান নেন ভারতের দেওবন্দের আলেমরা। এরই জের ধরে বাংলাদেশেও কওমি আলেমরা তাকে প্রতিহতের ঘোষণা দেন। আসন্ন ইজতেমায় অংশ নিতে গতকাল বুধবার (১০ জানুয়ারি) মাওলানা সা’দ ঢাকায় এলে বিমানবন্দরেই তাকে প্রতিহতের উদ্দেশ্যে তাবলিগের একাংশ ও কওমিপন্থী আলেমরা প্রতিবাদ জানাতে থাকেন। তবে বিকালে বিশেষ পুলিশ পাহারায় তাকে কাকরাইলের তাবলিগ মসজিদে আনা হয়। এ ঘটনায় বিমানবন্দর ও আশেপাশের এলাকায় টানা ৭ ঘণ্টা মারাত্মক দুর্ভোগ পোহাতে হয় নগরবাসীকে। বিষয়টির কোনও সমাধান না হওয়ায় আজও সা’দবিরোধীরা বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেট এলাকায় আন্দোলন শুরু করে। এ অবস্থায় উদ্ভূত সমস্যার সমাধানে উভয়পক্ষকে আজ দুপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বৈঠকে বসার আহ্বান জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। আগামীকাল শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) টঙ্গীর তুরাগ নদীর পারে তিন দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হতে যাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here