ঈদের আগেই ঈদের আনন্দে ভাসলো যশোরের ৩১৮ ভূমিহীন পরিবার

0
111

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরের ৮ উপজেলায় আরও ৩১৮ ভূমিহীন পরিবার পাচ্ছে মাথা গোঁজার ঠাঁই। মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দরিদ্র ও ভূমিহীনদের মাঝে ‘ঈদ উপহার’ হিসেবে এসব ঘর হস্তান্তরের কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন।

তৃতীয় পর্যায়ে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে কমপক্ষে দুই শতক খাস জমির বন্দোবস্তসহ দুইকক্ষবিশিষ্ট ৩১৮টি পরিবারের ঘর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। সরকারিভাবে এসব ঘর নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৮ কোটি ২৫ লাখ ২১ হাজার টাকা। এর আগে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ৮ উপজেলায় আরও ১ হাজার ১৮১ জন ভূমিহীন পেয়েছেন সরকার প্রদত্ত ঘর।

আজ সোমবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে যশোর কালেক্টরেট সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান যশোরের জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান।

জেলা প্রশাসক আরও জানান, যশোরের ৮ উপজেলায় তৃতীয় পর্যায়ের আওতায় ভূমিহীনদের জন্য ৬১০টি ঘরের নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলেছে। ইতিমধ্যে ৩১৮টি গৃহ নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া বাকি ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। দু’কক্ষ বিশিষ্ট প্রতিটি ঘরে নির্মাণ ব্যয় হয়েছে ২ লাখ ৫৯ হাজার ৫শ’ টাকা। প্রতিটি পরিবারের জন্য পানি ও বিদ্যুৎসহ প্রতিটি গৃহে ইটের দেয়াল, কংক্রিটের মেঝে এবং টিনের ছাউনি দিয়ে তৈরি দুটি কক্ষ, একটি রান্নাঘর, টয়লেট ও সামনে খোলা বারান্দা রয়েছে। এ ঘরগুলো সরকারি প্রকল্পের আওতায় উপজেলা প্রশাসনের তত্বাবধানে নির্মাণ করা হয়েছে। এর আগে মুজিববর্ষ উপলক্ষে যশোরে দু’দফায় গৃহহীনদের মাঝে জমিসহ ঘর প্রদান করা হয়েছে। যার সংখ্যা ছিল ১ হাজার ১৮১টি। ওইসব প্রকল্পের ঘরগুলোতে গৃহহীনরা তাদের পরিবার নিয়ে বর্তমানে শান্তিতে বসবাস করছেন বলে জেলা প্রশাসক জানিয়েছেন।

জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান আরও জানিয়েছেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে যশোরে দু’দফায় এক হাজার ১৮১ ভূমিহীন পরিবারের মাঝে জমিসহ ঘর প্রদান করা হয়েছে। এবার তৃতীয় দফায় ৩১৮ জনের মাঝে দুই শতক জমির ওপর নির্মিত ঘরের দলিল হস্তান্তর করা হবে। এ প্রকল্পে আরও ২৯২টি ঘর নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে- যা এই অর্থবছরেই ভূমিহীনদের মাঝে বিতরণ করা হবে। ঘর পাওয়ার ফলে তাদের মাথা গোঁজার ঠাঁই মিলবে। এতদিন যাদের জমি ও ঘর ছিল না, পথে পথে ঘুরেছেন তারা এবার সরকারের বিনামূল্যের নিজের বাড়িতে ঘুমাতে পারবেন। মানুষকে ঠিকানা দিতে পারবেন নিজের বাড়ির। এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘ঈদ উপহার’।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কাজী মো. সায়েমুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) তুষার কুমার পাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।