একসঙ্গে তিন মহাদেশে মুক্তি পাচ্ছে ‘মিশন এক্সট্রিম’

0
64

বহুল প্রতীক্ষিত পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’র মুক্তির ঘণ্টা বাজলো। আগামী ৩ ডিসেম্বর সিনেমাটির প্রথম পর্ব মুক্তি পেতে যাচ্ছে। তবে কেবল বাংলাদেশে নয়, বিশ্বের আরও ১৪টি দেশে মুক্তি পাচ্ছে সিনেমাটি। বাংলাদেশের পাশাপাশি একইদিনে সিনেমাটি দেখতে পারবেন অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও নিউজিল্যান্ডের মতো দেশের মানুষেরা। যার ফলে একইদিনে এশিয়া, আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়া তিন মহাদেশের মানুষ সিনেমাটি দেখতে পারবে।

‘মিশন এক্সট্রিম’র অন্যতম পরিচালক, প্রযোজক এবং লেখক সানী সানোয়ার সিনেমা মুক্তির বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দিয়েছেন। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির ক্রমাগত উন্নতি ঘটায় ‘মিশন এক্সট্রিম’ মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

সানী সানোয়ার বলেন, ‘শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার মাধ্যমে দেশে করোনার বিরুদ্ধে প্রাথমিক বিজয় ঘোষিত হয়েছে। জীবনযাত্রা এখন অনেকটা স্বাভাবিক। পাশাপাশি ব্যাপকভিত্তিক ভ্যাক্সিনেশনও চলছে। এখন শুধু একটি জিনিসই বাকি, আর তা হলো সিনেমা হলে বড় বাজেটের নতুন সিনেমা মুক্তি পাওয়া। এই ঘোষণার মাধ্যমে আমরা সেই কাজটি করতে যাচ্ছি। আশা করছি, সবাই আমাদের পাশেই থাকবেন। করোনার বড় ধাক্কা সামলে আবারও আমরা ফিরে যাবো সিনেমার সেই সুদিনে।’

‘ঢাকা অ্যাটাক’খ্যাত এই চিত্রনাট্যকার আরও জানান, ‘মিশন এক্সট্রিম’র প্রচারণা ব্যাপক আয়োজনে শুরু করতে যাচ্ছেন। শীঘ্রই প্রকাশ করবেন সিনেমা ট্রেলার এবং চমকপ্রদ সব প্রমোশনাল কন্টেন্ট।

যুক্তরাষ্ট্রে ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর পরিবেশনা করছে বায়স্কোপ ফিল্মস। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার রাজ হামিদ বলেন, ‌‌‘‘হলিউডের বিখ্যাত সব সিনেমাগুলোর মতো নিউইয়র্কে ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর প্রিমিয়ার শো হবে ৩ ডিসেম্বর রাত ১২টা ১ মিনিটে। জ্যামাইকা মাল্টিপ্লেক্সে সিনেমা কমপ্লেক্সে ৩ ডিসেম্বর থেকে ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত মোট ২৭টি শো চূড়ান্ত করা হয়েছে। আমরা এই সিনেমাটি দিয়ে কোভিড পরবর্তী পৃথিবীতে সবাইকে প্রেক্ষাগৃহে স্বাগত জানাতে চাই। ছবিটি মুক্তির খবর শুনে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিরাও খুব আনন্দিত।”

প্রতিষ্ঠানটির আরেক কর্ণধার নউশাবা রশিদ বলেন, ‘৩ ডিসেম্বর নিউইয়র্ক ছাড়াও লসএঞ্জেলস, সানফ্রানসিসকো, মিয়ামির অদূরে ওয়েস্ট পাম বিচ-এ সিনেমাটি মুক্তি দেওয়া হচ্ছে। পরবর্তী ধাপে মুক্তি পাবে- ডালাস, অস্টিন, হিউস্টন, ভার্জিনিয়ার কয়েকটি সিটি, ডিসি, বোস্টন, নিউজার্সি, আটলান্টা, ফিনিক্স, সিয়াটল, পোর্টল্যান্ড, ডেট্রয়েট, সাক্রোমেন্টো, রিভারসাইড এবং প্রথমবারের মতো নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের অ্যালবানি ও অ্যালাবামার হান্টসভিল-এ। আশা করি সিনেমাটি এখানকার দর্শক হৃদয় জয় করে নিতে সামর্থ্য হবে।’

অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে ‘মিশন এক্সট্রিম’ পরিবেশনা করবে বঙ্গজ ফিল্মস। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার তানিম মান্নান বলেন, ‘‘প্রবাসে বাংলা সিনেমা নির্বাচনের ক্ষেত্রে আমরা বরাবরই রুচিশীল সিনেমার সাথে থাকার চেষ্টা করি। আমাদের প্রচেষ্টার মূলে থাকে প্রবাসী দর্শকরা যেন তাদের মূল্যবান সময় এবং অর্থের বিনিময়ে কোনোভাবেই সিনেমা হলে এসে হতাশ না হন। ‘ঢাকা অ্যাটাক’ দিয়ে আমরা সেই সফলতা পাই। আমি বিশ্বাস করি ‘মিশন এক্সট্রিম’ আমাদের দর্শকদের তার থেকেও বেশি বিনোদিত করবে।’’

পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমাটি সানী সানোয়ারের সঙ্গে যৌথভাবে পরিচালনা করেছেন ফয়সাল আহমদ। এর কেন্দ্রীয় চরিত্রে রয়েছেন আরিফিন শুভ। এছাড়াও আছেন তাসকিন রহমান, জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী, সাদিয়া নাবিলা ও সুমিত সেনগুপ্তসহ অনেকেই।

বিগ বাজেটের ‘মিশন এক্সট্রিম’র জন্য টানা ৯ মাসের হাড়ভাঙা খাটুনি করে বডি ট্রান্সফরমেশন করেছেন চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ। সিক্স প্যাকের সুঠাম দেহে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন দেশের সকল সিনেমাপ্রেমী দর্শকদের। দীর্ঘদিন আটকে থাকার পর অবশেষে ‘মিশন এক্সট্রিম’র মুক্তির ঘোষণায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই নায়ক।

তিনি বলেন, ‘মিশন এক্সট্রিম’র জন্য নিজেকে ফিট করতে যে পরিশ্রম করেছি, সেটা কখনো ভোলার মতো নয়। দীর্ঘ ট্রেনিংয়ে পায়ের লিগামেন্ট স্থানচ্যুত হয়েছিল, ছিঁড়ে ছিল টিস্যুও। সে আঘাতে এখনো কাতরাতে হয়। এসব কষ্ট ভুলে যাবো, যখন ‘মিশন এক্সট্রিম’ দেখে দর্শকদের ভালো লাগবে। সিনেমাটি অবশেষে মুক্তি পেতে যাচ্ছে, এটা খুবই আনন্দের।

কপ ক্রিয়েশনের ব্যানারে নির্মিত সিনেমাটির অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন- রাইসুল ইসলাম আসাদ, ফজলুর রহমান বাবু, শতাব্দী ওয়াদুদ, মাজনুন মিজান, ইরেশ জাকের, মনোজ প্রামাণিক, আরেফ সৈয়দ, সুদীপ বিশ্বাস দীপ, রাশেদ মামুন অপু, এহসানুল রহমান, দীপু ইমামসহ অনেকে।

উল্লেখ্য, ‘মিশন এক্সট্রিম’ সিনেমাটি পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তথা ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ‘সিটিটিসি’র কিছু শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মিত। গল্প ও চিত্রনাট্য লিখেছেন পুলিশ সুপার সানী সানোয়ার নিজেই। সিনেমাটির সহযোগী প্রযোজক হিসেবে রয়েছে মাইম মাল্টিমিডিয়া ও ঢাকা ডিটেকটিভ ক্লাব। এর আগে পর পর দুই বছর দুই ঈদে ‘মিশন এক্সট্রিম’ মুক্তির ঘোষণা দেওয়া হলেও করোনার কারণে তা আর সম্ভব হয়নি।