এবার বাড়ছে বাসভাড়া

0
263

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানী ও চট্টগ্রাম মহানগরে চলাচলকারী গ্যাসচালিত বাসের ভাড়া বাড়ানোর আবেদন করেছেন পরিবহন মালিকরা। গতকাল রোববার সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এম এ এন ছিদ্দিক বরাবর এ আবেদন করেছে সড়ক পরিবহন সমিতি। অন্যদিকে, সিএনজিচালিত অটোরিকশার শ্রমিকরাও বিআরটিএ চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখা করে দাবি জানিয়েছেন ভাড়া বাড়ানোর।
এদিকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও আভাস দিয়েছেন, বাসের ভাড়া বাড়তে পারে। গতকাল রোববার তিনি বলেন, ‘যখন গ্যাসের দাম বাড়ে তার একটা প্রতিক্রিয়া আছে। বিআরটিএর ভাড়া পুনর্নির্ধারণ কমিটিতে সব পক্ষ বসে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।’ তিনি জানান, এমন উদাহরণও আছে, গ্যাসের দাম বেড়েছে কিন্তু ভাড়া বাড়ে?নি।’
গত বৃহস্পতিবার গ্যাসের দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দেয় সরকার। বর্তমানে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম ৩৫ টাকা। আগামী ১ মার্চ থেকে সমপরিমাণ গ্যাসের দাম হবে ৩৮ টাকা। ১ জুন থেকে হবে ৪০ টাকা। দুই দফায় পরিবহনে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বাড়তে চলেছে প্রায় ১৪ দশমিক ২৮ শতাংশ। গ্যাসের এ বর্ধিত দাম কার্যকর হওয়ার আগেই পরিবহনের ভাড়া বাড়ানোর আবেদন করেছেন মালিকরা।
সড়ক পরিবহন সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ জানান, গতকাল বিকেলে বাস ভাড়া বাড়ানোর জন্য সমিতির আবেদন মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়। সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান মশিউর রহমানকেও অনুলিপি দেওয়া হয়েছে। তিনি দাবি করেন, শুধু গ্যাসের দাম বৃদ্ধি নয়- গত দেড় বছরে যন্ত্রাংশ এবং বাসের পরিচালনা ব্যয়ও বেড়েছে। পরিবহন মালিকদের টিকে থাকার স্বার্থেই ভাড়া বৃদ্ধির বিকল্প নেই।
তবে আবেদন না পাওয়ার কথা জানিয়ে সচিব এম এ এন ছিদ্দিক বলেন, ‘আবেদন পাওয়ার পর আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভাড়া নির্ধারণ করার জন্য বিআরটিএর ব্যয় বিশ্লেষণ কমিটি রয়েছে। এতে সরকার, বিআরটিএ এবং মালিক-শ্রমিকদের প্রতিনিধিত্বও রয়েছে। এই কমিটি বাস পরিচালনার ব্যয় বিশ্লেষণ করে ভাড়া নির্ধারণ করবে।’
২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর গ্যাসের দাম ৩০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩৫ টাকা করে সরকার। ওই বছরের ১ অক্টোবর বাস ভাড়া কিলোমিটারে ১০ পয়সা বাড়ানো হয়। তখন ১৭টি পরিচালনা ব্যয় বিবেচনায় নিয়ে বাস ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছিল। ‘অবিশ্বাস্য ব্যয়’ নিয়ে তখন প্রশ্ন উঠেছিল। ২০১৫ সালের ১ নভেম্বর থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশার ভাড়া বাড়ে ৬০ শতাংশ।
বর্তমানে রাজধানী ও পার্শ্ববর্তী পাঁচ জেলা এবং চট্টগ্রাম মহানগরীতে গণপরিবহন হিসেবে চলাচলকারী বাসে সরকার নির্ধারিত ভাড়া কিলোমিটারে ১ টাকা ৭০ পয়সা। মিনিবাসে প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া ১ টাকা ৬০ পয়সা। তবে অধিকাংশ বাস এ ভাড়া মানে না। রাজধানীতে কিলোমিটারে তিন টাকা পর্যন্ত ভাড়া আদায়ের নজির রয়েছে। যাত্রী কল্যাণ সমিতি নামের একটি সংগঠনের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৯৪ ভাগ অটোরিকশাই মিটারে চলে না। দ্বিগুণের বেশি ভাড়া আদায় করে যাত্রীদের কাছ থেকে।
সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক সমকালকে বলেন, ‘২০১৫ সালে সরকার কিলোমিটারে ১০ পয়সা ভাড়া বাড়ানোর পর মালিকরা তা না মেনে কিলোমিটারে ৩০ থেকে ৪০ পয়সা পর্যন্ত বাড়ান। বর্তমানে যে ভাড়া নেওয়া হয়, তা সরকার নির্ধারিত ভাড়ার প্রায় দ্বিগুণ। এ পরিস্থিতিতে আবারও ভাড়া বাড়ানো হলে, অতীতের মতোই নৈরাজ্য হবে। সরকার ১০ পয়সা ভাড়া বাড়ালে মালিকরা ২৫ থেকে ৩০ পয়সা বাড়াবেন।’
বিআরটিএ চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান জানান, গ্যাসের দাম বৃদ্ধির সরকারি সিদ্ধান্তের আনুষ্ঠানিক চিঠি ও পরিবহন মালিকদের ভাড়া বাড়ানোর আবেদন- কোনোটাই এখনও পাননি তারা। চিঠি ও আবেদন পাওয়ার পর ব্যয়-বিশ্লেষণ কমিটির সুপারিশ এবং নিয়মনীতি যাচাই করে ভাড়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
বিআরটিএর হিসাবে রাজধানীতে ১০৩ রুটে গণপরিবহন হিসেবে চলাচলকারী বাসের সংখ্যা ছয় হাজার ৪৩৫টি। এর মধ্যে মাত্র ২০ ভাগ গ্যাসচালিত। আগে এই সংখ্যা প্রায় ৮০ ভাগ ছিল। গ্যাস পেতে লম্বা লাইন ও বাসের আয়ুষ্কাল বাড়াতে গত কয়েক বছরে অধিকাংশ বাস সিএনজি থেকে ডিজেলে রূপান্তর করা হয়েছে। কিন্তু এগুলোর ভাড়াও বাড়ানোর আবেদন করেছেন মালিকরা।
ভাড়া বাড়ানোর দাবি অটোরিকশায়: গতকাল রোববার বিআরটিএ চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখা করে শ্রমিক প্রতিনিধিরা অটোরিকশার ভাড়া বাড়ানোর দাবি করেছেন। এ প্রসঙ্গে চালক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও অটোরিকশার ভাড়া নির্ধারণ কমিটির সদস্য মোহাম্মদ হানিফ খোকন সমকালকে বলেন, ‘গ্যাসের দাম বৃদ্ধিতে মালিকদের ক্ষতি হয় না। কিন্তু চালকদের দিনে ৮০ টাকা ব্যয় বেড়েছে। গত দেড় বছরে জীবন নির্বাহের ব্যয় অনেক বেড়েছে। ২৮ টাকার চাল ৫২ টাকা হয়েছে। ভাড়া না বাড়ালে চালকরা আর মিটারে চলতে পারবে না।’
ঢাকা ও চট্টগ্রামে ১৩ হাজার সিএনজিচালিত অটোরিকশা চলাচল করে। প্রথম দুই কিলোমিটারে এর ভাড়া ৪০ টাকা। পরবর্তী প্রতি কিলোমিটারের ভাড়া ১২ টাকা। ওয়েটিং চার্জ প্রতি মিনিটে ২ টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here