এ জনদূর্ভোগ ও দূর্ঘটনার দায় কার ??

0
65

নিজস্ব প্রতিনিধি

যশোর চৌগাছার তানজিলা ব্রিকস নামে একটি ইট ভাটা, মাটি পরিবহনে কোনো নিয়ম মানছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। নিয়ম না মানায় পরিবহনের সময় মাটি রাস্তায় পড়ে থাকছে।

রবিবার দূপুরে বৃষ্টি শুরু হলে সেই মাটির কারনেই যশোর-চৌগাছা মহাসড়কের চৌগাছা কয়ারপাড়া থেকে উপজেলা মডেল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পর্যন্ত রাস্তা কাদাময় হয়ে উঠে। এই কাদায় পিছলে পড়ে মটর সাইকেল দূর্ঘটনাসহ বেশ কয়েকটি দূর্ঘটনা ঘটে। তবে অনেকে দাবী করেন এই দূর্ভোগ যশোর সদরের চুড়ামনকাঠি থেকে শুরু হয়েছে।

সরেজমিনে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়। মাটি পরিবহনের বিষয়ে জানতে চাইলে তানজিলা ব্রিক্সের ম্যানেজার নাসির উদ্দিন বলেন,আমার গেটের সামনে কোনো দূর্ঘটনা ঘটেনি। আমাদের গেট পার হয়ে দূর্ঘটনা ঘটেছে। কথা বলার সময় তিনি বার বার এই প্রতিনিধিকে অফিসে এসে দেখা করতে অনুরোধ করতে থাকেন। শেষে তিনি বলেন শুধু আমরা না মাটি ডিভাইন হাসপাতাল এবং চৌগাছা উপজেলা মডেল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও যাচ্ছে। সে বিষয়টির কারনেও দূর্ঘটনা হতে পারে।

এ বিষয়ে চৌগাছা ইট ভাটা মালিক সমিতির সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য দেওয়ান তৌহিদুর রহমান বলেন,“তানজিলা ব্রিকস আমাদের সমিতির সদস্য না। তাদেরকে বেশ কয়েকবার মাটি পরিবহনে সাবধান হতে বলেছি। ইট ভাটার মাটি পরিবহনের নিয়মের বিষয়ে তিনি বলেন, পরিবহনের সময় রাস্তায় মাটি পড়লে সাথে সাথে সেটি উঠিয়ে ফেলতে হবে। কোনো রকম জনভোগান্তি তৈরি করা যাবে না। আর জন ভোগান্তির তৈরি হলে সে বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।”

এর আগে চৌগাছা বাজার ব্যবসায়ি সমিতির যুগ্ম-সম্পাদক আজিজুর রহমান এ্যাডমিরাল মুঠো ফোনে অভিযোগ করেন, আমার সামনেই কয়েকটি দূর্ঘটনা ঘটেছে। তিনি প্রশ্ন করেন এ ধরনের জনদূর্ভোগের বিষয়ে দেখার কি কেউ নেই??

অন্য দিকে মুঠো ফোনে চৌগাছার ঐশি মল্লিক ভাটার মালিক ও ৩নং সিংহঝুলি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হামিদ মল্লিক বলেন, আমার চোখের সামনেই তানজিলা ব্রিক্সের গেটের সামনে তিনটি মটর সাইকেল দূর্গটনা ঘটেছে। তিনি আরো বলেন,আমিই আপনাকে ফোন করতে যাচ্ছিলাম। তানজিলা ব্রিকসের ভাটার মাটিতেই রাস্তায় কাদা তৈরি হয়েছে এবং তাতেই দূর্ঘটনা ঘটছে বলেও তিনি জোর দাবী করেন।

ইট ভাটার মাটি পরিবহনে কোনো রকম জনভোগান্তি তৈরি করা যাবেনা। পরিবহনের সময় মাটি রাস্তায় পড়লে বা জমে থাকলে সেটি অবশ্যই পরিষ্কার করতে হবে এবং আমরাও তাই করে থাকি বলে জোর দিয়ে জানিয়েছেন চৌগাছা ইট ভাটা মালিক সমিতির সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য দেওয়ান তৌহিদুর রহমান, সিংহঝুলি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ঐশি মল্লিক ভাটার মালিক হামিদ মল্লিকসহ আরো একজন ভাটা মালিক।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইরুফা সুলতানা বিষয়টি আমি দেখছি বলে জানান।