কালকিনিতে উপজেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও যায়যায়দিন পত্রিকার প্রতিনিধিকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

0
282

মাদারীপুর প্রতিনিধি : মাদারীপুরের কালকিনিতে উপজেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার স্থানীয় প্রতিনিধি শহিদুল ইসলামকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করেছে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার লোকজন। ঘটনাটি গতকাল শুক্রবার দুপুরের।

উপজেলার পূর্ব এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে তিনি এ নির্যাতনের শিকার হন। এ ঘটনার পর উল্টো পুলিশ ওই সাংবাদিককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে ওই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করলে তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুপুরে নির্বাচনী প্রচারণার সংবাদ সংগ্রহ করে পূর্ব এনায়েতনগর ইউনিয়নে যান সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম। এসময় আচরণবিধি লঙ্ঘন করে প্রচারণা চালাচ্ছে এমন ঘটনার ছবি তুলতে গেলে তার ওপর আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী বাদল তালুকদারের সমর্থকরা অতর্কিত হামলা চালায়।

তাৎক্ষণিকভাবে থানায় খবর দিলে পুলিশ ওই সাংবাদিককে কালকিনি থানায় নিয়ে যায়। এসময় চেয়ারম্যান প্রার্থীর ছোট ভাই সরোয়ার তালুকদার (৩০) ও নাজমুল খান (১৭) নামে দুজনকে আটক করা হয়।

বিকেলে এ বিষয়ে থানায় মামলা করতে গেলে স্থানীয় নেতাকর্মীদের চাপের মুখে ওই সাংবাদিকের মামলা না নিয়ে উল্টো থানায় তাকে আটকে রাখা হয়। এরপর সন্ধ্যায় অসুস্থ হয়ে পড়লে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে সাংবাদিকরা থানায় গেলে স্থানীয় এমপি বাহাউদ্দিন নাছিমের সঙ্গে সমঝোতা করলেই ওই সাংবাদিককে ছাড়া হবে বলে জানিয়েছেন কালকিনি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কৃপা সিন্দু বালা।

আহত সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম জানান, আমাকে নির্বাচনী এলাকায় পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে একা পেয়ে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী বাদল তালুকদারের সমর্থকরা গাছে বেঁধে মারধর করেছে।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাদল তালুকদারের ফোন নম্বরে একাধিকবার ফোন করলেও বন্ধ পাওয়া যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here