কালিয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম করলো যৌতুকলোভী স্বামী

0
332

নড়াইল প্রতিনিধিঃ
নড়াইলের কালিয়ার দাড়িয়াঘাটা গ্রামে দ্বিতীয় দফায় যৌতুকের দাবি মেটাতে অপারগতা প্রকাশ করায় স্ত্রী রুমকি বেগম (৩০) কে কুিপয়ে জখম করেছে পাষন্ড স্বামী লিটন মোল্যা। গত ৬ মে রাত ১১ টার দিকে স্বামীর বসত বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত রুমকি বেগমকে প্রথমে নড়াইল সদর হাসপাতালে ও পরে অবস্থার অবনতি হলে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ব্যাপারে বুধবার (১০ মে) আহতের ভাই রাফি শেখ কালিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ফুলদহ গ্রামের মরহুম রবিউল ইসলামের মেয়ে রুমকি বেগমের সঙ্গে ২০০৪ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর একই উপজেলার দাড়িয়াঘাটা গ্রামের বালাম মোল্যার ছেলে লিটন মোল্যার বিয়ে হয়। তাদের সংসারে দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে স্বামী লিটন বিভিন্ন সময়ে রুমকির পরিবারের কাছ থেকে যৌতুকের টাকা দাবি করে আসছিলো। গত বছর ১০ ফেব্রুয়ারি নির্যাতন থেকে বাঁচতে ৫০ হাজার টাকা রুমকির বিধবা মা ধানী জমি বন্ধক রেখে লিটনকে দেয়। এরপর এক বছর পার হতে না হতেই আবারো আরও ১ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করতে থাকে স্বামী লিটন মোল্যা। পিতৃহীন দরিদ্র পরিবারের কাছ থেকে যৌতুক আনতে অপারগতা প্রকাশ করায় গত ৬ মে রুমকি বেগমকে ধারালো কাচি (সিজারস) দিয়ে কপালের উপরিভাগ, মাথার পেছন ও ঘাড়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এছাড়া পাষন্ড স্বামী দরজার কাঠের আড়বেড়ি দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে মারপিট করে পিঠের মেরুদন্ডসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর আহত করে। আহতের আর্তচিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। রুমকি বেগম এখন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এ ঘটনায় কালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ গণি মিয়া বলেন, ‘এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here