কালীগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতের হানায় স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ

0
210

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালত মুক্তা খাতুন নামে এক স্কুলছাত্রীর বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দিয়েছেন। এ সময় সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার দায়ে জালাল উদ্দিন নামে এক ব্যক্তিকে ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও কনের বাবাকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেন আদালত। সোমবার দুপুরে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ছাদেকুর রহমান বিয়ে বন্ধ করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেন। মুক্তা ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ শহরের ফয়লা এলাকার বিল্লাল হোসেনের মেয়ে ও সলিমুননেছা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর ছাত্রী।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ছাদেকুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তিনি জানতে পারেন, কালীগঞ্জের ফয়লা এলাকায় হাসপাতাল সড়কের বাসিন্দা বিল্লাল হোসেন তার স্কুলপড়ুয়া মেয়ে মুক্তা খাতুনকে বিয়ে দিচ্ছেন। এ খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন বিয়ের অনুষ্ঠানে খাওয়া-দাওয়া চলছে এবং বরের অপেক্ষায় রয়েছে কনে পক্ষ। তিনি কনের বাবা-মাকে বুঝিয়ে মেয়েটিকে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা করেন। তিনি আরো জানান, সরকারি কাজে বাধা ও অসহযোগিতার দায়ে আদালত বসিয়ে জালাল উদ্দিন নামে স্থানীয় এক ব্যক্তিকে সাত দিনের কারাদন্ডাদেশ দেওয়া হয়। আর কনের বাবা বিল্লাল হোসেনকে এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here