কাস্টডিতে নিজের আইনজীবীদের উপর রেগে গিয়ে যা বললেন পরীমণি

0
30

অনলাইন ডেস্ক : রাজধানীর বনানী থানায় দায়ের করা মাদক মামলায় চিত্রনায়িকা পরীমণিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ শনিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমাম শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। এদিন বিকেল পৌনে তিনটায় পরীমণিকে আদালতে তোলা হলে তার আইজীবীরা আইনি পরামর্শের জন্য কথা বলার আবেদন করলে তা খারিজ করেন আদালত। এসময় আদালতে কাস্টডিতে দাঁড়িয়ে আইনজীবীদের উপর ক্ষিপ্ত হন পরীমণি।

আদালতের ৫ মিনিটের বিরতির মধ্যে নায়িকা পরীমণি তার আইনজীবীদের ডেকে রেগে গিয়ে বলেন, ‘আপনারা কি করছেন? আমার সঙ্গে দেখা করার কি আছে? এতোদিন হলো এখনও জামিন করাতে পারলেন না? বুঝেন আমার কি কষ্ট হচ্ছে? আমি তো পাগল হয়ে যাচ্ছি। আমি তো পাগল হয়ে পরে কামড়ানো শুরু করবো।’ পরীমণি তার আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভীসহ অন্যান্যদের উদ্দেশ্যে এসেব কথা বলেন।

এর আগে, পরীমণিকে আদালতের এজলাসে উপস্থিত করে শুনানির জন্য আবেদন করেন তার আইনজীবী মুজিবুর রহমান। পরে শুনানি শুরু হলে মুজিবুর রহমান আদালতকে বলেন, আমরা আজকে জামিন শুনানি করছি না। আমরা একটা আবেদন জানাই, আমাদের পরীমণির সঙ্গে কথা বলতে চাই। ৫ দিন চেষ্টা করেও তার সঙ্গে কথা বলতে পাননি।
এর আগে, তৃতীয় দফায় এক দিনের রিমান্ড শেষে শনিবার বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে পরীমণিকে আদালতে হাজির করে মামলার তদন্ত সংস্থা সিআইডি। এরপর তাকে আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক কাজী গোলাম মোস্তফা তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন।

এর আগে, গত ১৯ আগস্ট পরীমণির একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম। উল্লেখ্য, গত ৪ আগস্ট প্রায় চার ঘণ্টার অভিযান শেষে বনানীর বাসা থেকে পরীমণি ও তার সহযোগী দীপুকে আটক করে র‍্যাব। এ সময় পরীমণির বাসা থেকে বিভিন্ন মাদক জব্দ করা হয়। ৫ আগস্ট র‍্যাব-১ বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য আইনে পরীমণি ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মামলা করে।