কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ভিন্ন খাতে নেয়ার চেষ্টায় হতবাক সুধীজন

0
428

নিজস্ব প্রতিবেদক, নড়াইল: নড়াইল ও লোহাগড়ায় ৩ শতাধিক এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ভিন্নখাতে নেয়ার চেষ্টায় হতবাক হয়েছেন সুধীজনসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ। গত ৫ আগস্ট বেলা ১১ টায় লোহাগড়া উপজেলার আরএলপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে এসএসএফ’র সাবেক মহাপরিচালক মেজর জেনারেল (অবঃ) আমান হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন শিল্পপতি ও শিক্ষানুরাগী শেখ মোঃ আমিনুর রহমান হিমু।

একটি কুচক্রী মহল এ মহতি উদ্যোগকে ভিন্নখাতে নেয়ার জন্য আজেবাজে মন্তব্য করায় হতবাক হয়েছেন বিভিন্ন পেশার মানুষ। কয়েকটি সংবাদপত্রে এ সংক্রান্ত খবরে সুধীজন হতবাক হয়েছেন। এ খবরে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝেও বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। অনুষ্ঠানটি নিয়ে ভ্রান্ত খবর ছাপা হওয়ায় সচেতনমহল তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের বিষয়ে লক্ষ্মীপাশা আদর্শ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ হাসানুজ্জামান বলেন, এ যাবত কালের মধ্যে এটাই ব্যতিক্রম ধর্মী অনুষ্ঠান। তুলারাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কৃতি শিক্ষার্থী শারমিন সুলতানা বলেন, আমি ভাবতেও পারিনি এমন ভাবে আমাদের সংবর্ধণা দেওয়া হবে। আমি এ সম্মানী পেয়ে অত্যন্ত খুশি। এ অনুষ্ঠানের কারণে আমাদের ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে নতুন করে পড়া-লেখার গতির সঞ্চার ও উৎসাহিত হয়েছে।

লোহাগড়া পৌর সভার সাবেক কাউন্সিলর ইউনুস মৃধা বলেন, ‘সমাজের কতিপয় দূস্কৃতিকারী লোক ভালোর মূল্যায়ন করতে জানে না। সমালোচনা ও ক্ষতি করাই তাদের একমাত্র কাজ। হিমু ভাইয়ের এই ভিন্ন ধর্মী আয়োজনকে আমরা সাধুবাদ জানাই।

আরএলপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামছুন নাহার বলেন, ‘সংবর্ধনা মঞ্চটা আমার স্কুল চত্বরের বাহিরে থাকায় আমার শ্রেণি কক্ষে পাঠদানে কোন বিঘœ ঘটেনি। তাছাড়া আয়োজকরা কাপড় দিয়ে বেস্টনি করে রেখেছিলো। স্বল্প সময়ে প্রগ্রামটা শেষ হয়ে যায়। রাজনৈতিক কোন বক্তব্য না থাকায় আমাদের কোন সমস্যা হয়নি’। লোহাগড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ লুৎফর রহমান জানান, ‘আমি ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষকের কাছে শুনেছি অনুষ্ঠান চলাকালিন সময়ে তাদের কোন সমস্যা হয়নি। তবে স্কুল বন্ধের দিন অনুষ্ঠানটি হলে ভালো হতো। জানা যায়, শিল্পপতি ও শিক্ষানুরাগী শেখ মোঃ আমিনুর রহমান হিমু’র উদ্যোগে গত ৫ জানুয়ারি নড়াইলে দারিয়াপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার মানোন্নয়নে ৩ লক্ষ টাকা, ৫০টি বিদ্যালয়ে ভলিবল ও নেট প্রদান, লোহাগড়ার ১২টি ইউনিয়নে শীতে গরীব ও দুস্থদের মাঝে ২৫শো কম্বল বিতরণ, ঈদে সাড়ে তিন হাজার শাড়ি ও লুঙ্গী বিতরণ করেন। হিমু আরো জানান, ‘নড়াইলকে নতুন ভাবে বিশ্ববাসীর কাজে তুলে ধরে তাক লাগিয়ে দিতে চাই। তাছাড়া শিক্ষার মানোন্নয়ন ও এলাকার গরীব-অসহায় মানুষের জন্য অনেক উন্নয়ন মূলক কাজ করার পরিকল্পনা রয়েছে’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here