কেশবপুরের বধ্যভূমি দখলমুক্ত

0
36

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি: সংবাদ প্রকাশের পর যশোর-চুকনগর মহাসড়কের কেশবপুরের মঙ্গলকোট বাজারের পাশে বুড়িভদ্রা নদীর তীরে বধ্যভূমির সরকারি জায়গা কাঠ ব্যবসায়ীর হাত থেকে দখলমুক্ত করেছেন কেশবপুরের ইউএনও।

অবৈধভাবে দখল করে কাঠ ব্যবসা পরিচালনা করার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ওই ব্যবসায়ীকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়। মঙ্গলবার বিকালে ভ্রাম্যমাণ আদালতটি পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম এম আরাফাত হোসেন।

জানা গেছে, কেশবপুর উপজেলার মঙ্গলকোট বাজারের পাশে বুড়িভদ্রা নদীর তীরে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধাকালীন সময়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীরা স্বাধীনতাকামী মানুষগুলোকে ধরে এনে মঙ্গলকোট ব্রিজের উপর দাঁড় করে দিয়ে গুলি চালিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে তাদের মরদেহ নদীতে ভাসিয়ে দিতো। সেই সব শহীদদের স্মৃতি স্মরণে কেশবপুর উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এই বধ্যভূমিটি নির্মাণ করা হয়।

কেশবপুরের মঙ্গলকোট বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ কাঠ ব্যবসায়ীর দখলে

সেই বধ্যভূমির সরকারি জায়গা দখল করে আলতাপোল গ্রামের আবুল হোসেন (৬৫) অবৈধভাবে কাঠ রেখে দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা করে আসছিলো। এর আগে মৌখিকভাবেও সতর্ক করে বধ্যভুমি থেকে কাঠ অপসারণের কথা বললেও তিনি কর্ণপাত করেননি।

বিষয়টি নিয়ে অনলাইন নিউজপোর্টাল স্বাধীন আলো ডটকম পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম এম আরাফাত হোসেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ওই কাঠ ব্যবসায়ীকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা ও বধ্যভূমি এলাকা কাঠ দ্রুত অপসারণ করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। তারই প্রেক্ষিতে ওই কাঠ ব্যবসায়ী বুধবার বিকালের মধ্যে ওই স্থান থেকে কাঠ অপসারণ করবেন বলে মুচলেকা প্রদান করেছেন।