গোলাপ কুঁড়িতে রোজক্যাপ ব্যবহার করে যশোরের ঝিকরগাছা ও শার্শার ফুলচাষিরা ব্যাপক সাফল্য

0
468

আরিফুজ্জামান আরিফ : চীনের প্রযুক্তি নিয়ে গোলাপ কুঁড়িতে রোজক্যাপ ব্যবহার করে যশোরের ঝিকরগাছা ও শার্শার ফুলচাষিরা ব্যাপক সফলতা পেয়েছে।

গোলাপের আশানুরূপ দাম পেয়ে তারা খুব খুশী। যে গোলাপ ফুলটির দাম ছিল মাত্র দুই টাকা প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে সেই ফুলটি এমন ভাবে বিকশিত হচ্ছে যে তার দাম বেড়ে গিয়ে পড়েছে ১৫ টাকায়। শুধু তাই এই প্রযুক্তির ফুল বিদেশেও রফতানির চাহিদা বাড়ছে। আর এই প্রযুক্তি ব্যবহারে ফুল চাষিদের খরচ পড়ছে মাত্র ৫০ পয়সা।

আসলে রোজক্যাপ হলো স্থিতিস্থাপকতা গুণ সম্পন্ন প্লাষ্টিকের এক ধরনের ক্যাপ। গোলাপের যখন কুড়ি হয় তখন ক্যাপটি ঐ কুড়িতে পরিয়ে দিলে কুঁড়িটি রক্ষা পায় পোকামাকড়ের উপদ্রব আর প্রাকৃতিক সকল ধরনের বিপর্যয় থেকে। যার কারণেই ক্যাপের ভিতর কুঁড়িটি একটি উন্নতমানের পূর্ণাঙ্গ গোলাপ হিসাবে প্রস্ফুটিত হয়।

বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আবদুর রহিম জানান, ফুল চাষের ওপর অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য তিনি চীনে গিয়েছিলেন। সেখানে গিয়ে দেখেন এ রোজ ক্যাপ প্রযুক্তি। ফিরে এসে বাংলাদেশে উন্নতমানের গোলাপ উৎপাদনের জন্য রোজক্যাপ নামে এই প্রযুক্তি ব্যবহারের বিষয়টি ফুলচাষিদের জানান। কিন্তু ফুলচাষিদের এটা আগে এই পদ্ধতি জানা ছিল না। তাছাড়া দেশে এই ক্যাপ তৈরি হয় না। বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয়।
প্রথমে তিনি নমুনা হিসেবে চীন থেকে কিছু ক্যাপ এনে ব্যবহার করে শতভাগ সফলতা পেয়েছেন। ফ্লাওয়ার সোসাইটি ও ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালি ফুলচাষি ও ফুল ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির মাধ্যমে বিষয়টি সম্পর্কে ফুলচাষিদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। সুফল পেয়ে অনেকেই এ প্রযুক্তি ব্যবহারে বেশ আগ্রহী হয়ে উঠেছেন।

গদখালির সরদার নার্সারি মালিক রুস্তম আলী সরদার জানান, ২৮ বছর ধরে ফুল চাষ করছি। কিন্তু এ প্রযুক্তির কথা জানা ছিল না। সমিতির মাধ্যমে বিষয়টি জেনে আজ প্রযুক্তি নির্ভর চাষ করে যথেষ্ট লাভবান হচ্ছি। প্রযুক্তি ব্যবহারের আগে যে ফুল ফুটতো সেগুলো প্রতিটি বিক্রি হতো দুই টাকায়। এখন সেই ফুল এত উন্নত মানের হচ্ছে যে তার দাম বেড়ে দাড়িয়েছে ১৫ টাকায়। শুধু তাই নয় এ ফুলের সবটায় রফতানি মানের যোগ্য হচ্ছে।

হাড়িয়া গ্রামের শাহজাহান কবির ও পানিসারা গ্রামের রফিকুল ইসলাম লাভের কথা জানিয়ে বলেন, এই রোজক্যাপ প্রথম অবস্থায় আমদানি না হওয়ায় চাহিদা অনুযায়ী পাওয়া যাচ্ছিল না। বর্তমানে আমদানি হওয়াতে এ ক্যাপ এখন সহজেই পাওয়া যাচ্ছে।

ফুলচাষীদের কল্যাণে বিশেষ করে ফুল রফতানির মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের স্বার্থে রফতানিযোগ্য ফুল উৎপাদনের জন্য তারা রোজক্যাপ আমদানির ক্ষেত্রে আকাশ পথের চেয়ে সমুদ্র পথে অনুমোদন দিলে ফুলচাষিরা কম মুল্যে এটি ক্রয় করতে পারবেন। আর সে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ফুলচাষিরা সরকারের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here