ঘুষের ৫০ হাজার টাকা না দেয়ায় ঝরল ১৮ প্রাণ, শঙ্কা আরো!

0
102

নিজস্ব প্রতিবেদক : তিতাস গ্যাস সংযোগের লিকেজ থেকেই নারায়ণগঞ্জে মসজিদে নামাজ চলাকালে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

তাদের দাবি, লিকেজের বিষয়টি সমজিদ কমিটি আগে থেকে জানলেও তারা ব্যবস্থা নেয়নি। পাশাপাশি তিতাস কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও ৫০ হাজার টাকা ঘুষ না দেয়ায় তারা মেরামত করেনি বলেও অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার (০৫ সেপ্টম্বর) তল্লা এলাকায় সরেজমিনে বিভিন্নজনের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

শুক্রবার রাতে এশার নামাজ চলাকালে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকার বায়তুস সালাত জামে মসজিদে। এসময় মসজিদের ছয়টি এয়ারকন্ডিশন, অ্যাডজাস্ট ফ্যানসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ও জায়নামাজ পুড়ে যায়। অধিকাংশ সিলিং ফ্যান নষ্ট এবং দরজা জানালার সব কাঁচ ভেঙে টুকরো হয়ে মেঝেতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে। এ বিস্ফোরণে মুসল্লিদের মধ্যে গুরুতর দগ্ধ অবস্থায় ৩৭ জনকে ভর্তি করা হয় ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে।

সন্ধ্যা পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ জনে। এ ঘটনায় শোকের পাশাপাশি আতঙ্ক বিরাজ করছে এলাকাবাসীর মধ্যে।

তবে স্থানীয়রা বলেন, মসজিদটির নিচে তিতাস গ্যাস সংযোগে দীর্ঘদিন ধরে বেশ কয়েকটি লিকেজ থাকলেও সেগুলো মেরামত করা হয়নি। সেই লিকেজ থেকে নির্গত গ্যাস মসজিদের ভেতরে জমাট বেধে বিস্ফোরণ ঘটেছে। কেউ কেউ বলছেন, মসজিদ কমিটির নেতারা লিকেজের বিষয়টি আগে থেকেই জানতেন। কিন্তু তারা আমলে নেননি।

আবার কারো কারো অভিযোগ, মসজিদ কমিটি তিতাস কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা পঞ্চাশ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করায় নেতারা পিছ পা হন। উভয়পক্ষের গাফিলতির কারণেই এত বড় দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি এলাকাবাসীর।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স মহা-পরিচালক সাজ্জাদ হোসেনও লিকেজ থেকে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন।

স্থানীয় সামাজিক সংগঠন ‘‌আশার আলো কল্যাণ সংসদ’র সভাপতি ওয়াসিম ইকবাল এ বিষয়টির সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

তিনি বলেন, জানা মতে তিতাস কর্তৃপক্ষ মসজিদ কমিটির কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। টাকার কথা শুনে তারা এটি মেরামতে পিছ পা হন।

এদিকে এ ঘটনায় নাশকতার সন্দেহ পোষণ করে ঘটনাস্থল রাসায়নিক বিশেষজ্ঞ দ্বারা পরীক্ষা নিরীক্ষাসহ রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পর্যায়ের তদন্ত দাবি করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।

এছাড়া, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু বিকেলে এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি বলেন, তিতাস কর্তৃপক্ষের কারো কোনো গাফিলতি থাকলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রতিমন্ত্রী জানান, গ্যাস সংযোগের উপর দিয়ে মসজিদের বাইরের অংশ নির্মাণের কারণেই লিকেজ সৃষ্টি হয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। পাশাপাশি তিতাস কর্তৃপক্ষের কারো কোনো অবহেলা থাকলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, এ এলাকাটিতে রাজউকের অনুমোদন ছাড়াই অপরিকল্পিতভাবে ঘরবাড়ি নির্মাণসহ অধিকাংশ বাড়িতেই অবৈধভাবে গ্যাস সংযোগ নেয়া হয়েছে। তদন্ত করে এর বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।