চালককে গলাকেটে হত্যার পর ইজিবাইক ছিনতাই, আটক ২

0
55

নিজস্ব প্রতিবেদক: চালককে গলাকেটে হত্যার পর ইজিবাইক ছিনতাই, আটক ২চালককে গলাকেটে হত্যার পর ইজিবাইক ছিনতাই, আটক ২
যশোরে চালককে গলাকেটে হত্যার পর ইজিবাইক ছিনতাই করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার দিবাগত মধ্যরাতে যশোর সদর উপজেলার ঘুরুলিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইজিবাইক চালক আব্দুল্লাহ (১৮) যশোর সদর উপজেলার সুলতানপুর উত্তরপাড়ার মোজাদুল জামানের ছেলে ও যশোর মুসলিম এইড ইনস্টিটিউটের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। রাতেই লাশ উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত দুইজনকে আটক করা হয়েছে।

তারা হলেন-সদর উপজেলার তফর নওয়াপাড়া এলাকার আব্দুল গণির ছেলে হাসিবুর রহমান হাসিব (১৯) ও শহরের পূর্ব বারান্দী নাথপাড়ার ফারুক হোসেনের ছেলে আরিফ হোসেন (১৯)। ছিনতাই হওয়া ইজিবাইক ও মোবাইল ফোনসেট এবং হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি চাকু উদ্ধার হয়েছে।

এদিকে, ইজিবাইক চালক আব্দুল্লাহকে হত্যার প্রতিবাদে বুধবার দুপুরে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ অটোবাইক শ্রমিক কল্যাণ সোসাইটির সদস্যরা। এরপর হত্যাকারীদের আটক ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে।

নিহতের পিতা মোজাদাদুজ্জামান জানান, দুই ছেলের মধ্যে ছোট আব্দুল্লাহ। সে লেখাপাড়ার পাশাপাশি ইজিবাইক চালাতো। মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে ইজিবাইক নিয়ে বের হয়। তার মাকে সন্ধ্যার সময় ডাক্তার দেখানোর কথা ছিল শহরে। বিকেলে তার মোবাইলে ফোন দিলে জানায় যাত্রী নিয়ে ঝিকরগাছার গদখালীতে গেছে। সন্ধ্যার দিকে ফিরে আসে এবং ঘুরুলিয়া সাদ্দামের মোড়ে অবস্থান করে। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সে বাড়ির দিকে রওনা হয়। কিন্তু আর ফেরেনি। রাত ১০টা পর্যন্ত না ফেরায় বাড়ির ও এলাকার লোকজন খোঁজখবর নিতে থাকে। একপর্যায়ে ঘুরুলিয়া থেকে ছোট গোপালপুর যেতে বেলের মাঠ নামকস্থানে রাস্তার পাশে তার মরদেহ দেখতে পান এলাকার লোকজন। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

যশোর পুলিশের মুখপাত্র ও ডিবি ওসি রুপন কুমার সরকার জানান, ইজিবাইক ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে আব্দুল্লাহকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত হাসিব ও আরিফ নামে দু’জনকে আটক করা হয়েছে। একইসঙ্গে ছিনতাই হওয়া ইজিবাইক ও একটি চাকু এবং নিহতের একটি মোবাইল ফোনসেট উদ্ধার করা হয়েছে। এই ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।