চৌগাছার চুটারহুদা-বল্লভপুর সড়কের ব্রিজ ভেঙ্গে জনদূর্ভোগ সৃষ্টি, দূর্ঘটনার আশঙ্কা

0
102

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি

যশোরের চৌগাছার চুটারহুদা-বল্লভপুর সড়কের উপর নির্মিত একটি ব্রীজ ভেঙে পড়ায় জনদূর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। জীবন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে এ অঞ্চলের সাধারন জনগন।
সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার চুটারহুদা-বল্লভপুর সড়কের প্রাইমারি স্কুলের সামনেই ব্রীজটি প্রায় ধ্বসে পড়েছে। ব্রীজটির একপাশ ভেঙে বড়ো গর্তও তৈরি হয়েছে। ভাঙ্গা অংশের কংক্রিট ও রড বেরিয়ে আছে। দ্রুতই গর্তটি বড় আকার ধারন করার পাশাপাশি যেকোনো সময় পুরো ব্রীজটিই ধ্বসে যেতে পারে। এমতাবস্থাতে ঝুঁকি নিয়ে মানুষ চলাচল করতে পারলেও যানবাহন চলাচল প্রায় বন্ধ হওয়ার উপক্রম।
উপজেলার স্বরুপদাহ ও সুখপুকুরিয়া ইউনিয়নের চুটারহুদা,মাকাঁপুর বল্লভপুর, কাকুড়িয়া, হিজলিসহ আশেপাশের আরো কয়েকটি গ্রামের মানুষজনের পুড়াপাড়া হয়ে মহেশপুর যাতায়াতের জন্য এটিই একমাত্র রাস্তা। সড়ক। এরাস্তায় আপাতত কয়েকদিন ধরে ভ্যান, পিকআপ সহ হালকা,মাঝারি ও ভারি যানবাহন যাতায়াত বন্ধ রয়েছে ।
এলাকাবাসীরা জানান,এই সড়ক দিয়ে পুড়াপাড়া বাজার হয়ে মহেশপুর, চৌগাছা ও যশোরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে রোগী পরিবহনসহ যাতায়াত ও পন্য পরিবহন হয়। সড়কের উপরে নির্মিত ব্রিজটি প্রায় দুই মাস আগে আংশিক ভেঙে পড়ে। দিন যতই যাচ্ছে ততই ভাঙনের পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে, তাছাড়া ভাঙা অংশটুকু বিশেষভাবে চিহ্নিত না থাকায় অজানা পথচারীরাও যেকোনো মূহুর্তে বড় দুর্ঘটনার শিকার হতে পারে। তাদের দাবী স্থানীয় মেম্বার ও চেয়ারম্যানকে জানালেও কোনো কাজ হয়নি।
এ বিষয়ে স্বরুপদাহ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘সড়ক ও ব্রিজটি অনেক বছর আগে এল.জি.ই.ডি নির্মাণ করেছিলো। ব্রীজটি পুরাতন হয়ে যাওয়াতে কিছু অংশ ভেঙে গেছে। আর এটা তো এল.জি.ই.ডি’র দায়িত্ব আমাদের না।
উপজেলা প্রকৌশলি মনছুর রহমানকে ব্রীজটির ছবি দেখানো হলে তিনি বলেন এটি একট ইউ ড্রেন,ব্রীজ না। তিনি তখনই একজন উপ-সহকারি প্রকৌশলিকে ঘটনাস্থল দেখতে পাঠিয়ে দেন। তিনি বলেন জন দূর্ভোগ লাঘবে আমার যা যা করোনীয় সেটি অবশ্যই দ্রত সময়ের মধ্যে সমাধান করার চেষ্টা করবো। উল্লেখ্য ২০২০ সালের ১নভেম্বর প্রকৌশলি মনসুর রহমানের যোগদানের পরে উপজেলাতে এলজিডি’র কাজের মান ও গতি বৃদ্ধি পেয়েছে।