চৌগাছার জগদিশপুর ইউনিয়ন নির্বাচন আ’লীগের ৫,বিএনপি ১ ও জামাতের ১ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী

0
1217

নিজস্ব প্রতিনিধি

যশোর চৌগাছা উপজেলার ৬নং জগদিশপুর ইউনিয়নের আগামী নির্বাচনে আপন চাচা-ভাইপোসহ আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয় প্রত্যাশি ৫ জন। ইউনিয়নটিতে বর্তমান ভোটার প্রায় ১৩ হাজার।

এ ইউনিয়নে ১৯৮৮ সালে আওয়ামী লীগের মাষ্টার সিরাজুল ইসলাম, ১৯৯২ সালে আসাদুজ্জামান, ২০০৩ জামাতের আব্দুর রহমান এবং তবিবুর রহমান খান ৯৭,২০১১ এবং ২০১৬ সালে (৩ বার) আওয়ামী লীগ থেকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

ইউনিয়নে ৩ বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক তবিবুর রহমান খান আবারো দলীয় মনোনয়ন চাইবেন। বর্তমান এই চেয়ারম্যানের প্রতি দলীয় নেতা কর্মীদের ব্যাপক অসন্তোষের কারনে প্রবিন আওয়ামী নেতা মাষ্টার সিরাজুল ইসলাম এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রান সম্পাদক আব্দুল কাদের বর্তমানে তৃনমুলের পছন্দের প্রার্থী। পছন্দের তালিকায় আছেন বর্তমান চেয়ারম্যানের ভাইপো উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আজাদ রহমান খানও।

নিজের চাচা সম্বেন্ধে আজাদ বলেন, চেয়ারম্যান হয়েও তিনি বছরের অর্ধেক সময় বিদেশে থাকেন। ভাইপোর কথার উত্তরে চাচা চেয়ারম্যান তবিবুর রহমান খান বলেন,বছরে আমি সর্বোচ্চ ২মাস ১৫ (২ বারে) ছুটি পেয়ে থাকি। যে ছুটি খুলনা বিভাগীয় কমিশনার অনুমোদন করেন।

১৯৬৮ সালে ছাত্র রাজনীতি দিয়ে শুরু মাষ্টার সিরাজুল ইসলাম উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক হিসেবে ৩বার দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে দলীয় গ্রুপিং’র শিকার হয়ে এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্য নির্বাহী সদস্য। ইউনিয়নে নিজ প্রচেষ্টায় গড়ে তোলা স্কুল ও কলেজের প্রতিষ্ঠাকালিন প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি হিসেবে বর্তমানে দায়িত্ব পালন করছেন।

আওয়ামী পরিবারের সন্তান উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রান সম্পাদক আব্দুল কাদের করোনা ক্রান্তিকালে ইউনিয়নের জনগনকে নিজের সাধ্যমতো সাহায্য করে এবং বিপদে পাশে দাড়িয়ে জনপ্রিয় হয়েছেন।

চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য হাফিজুর রহমানও দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশি বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে বর্তমান চেয়ারম্যানের কাছে আওয়ামী লীগের নেতা কর্মী বা ভোটারের কোনো মূল্য নেই বলে অভিযোগ করেছেন জগদিশপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বদরুলসহ ৫নং ওয়াডের্র সেক্রেটারি আসলাম, ৩নং ওয়ার্ডের সভাপতি জমির বিশ্বাস, ৬নং ওয়ার্ড সভাপতি হায়দার আলী, ৭নং ওয়ার্ডে সভাপতি রেজাউল ইসলাম, ৯নং ওয়ার্ডে সেক্রেটারি চকম আলীসহ অন্যান্যরা। ওই সকল নেতারা জানিয়েছেন মাষ্টার সিরাজুল ইসলাম এবং আব্দুল কাদের ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মী এবং ভোটারদের খোজ খবর নিয়ে থাকেন। আজাদ রহমান খানকেও রাজনীতির মাঠে দেখা যায়।

আওয়ামী নেতা কর্মীদের মূল্যায়ন না করার অভিযোগটি মিথ্যা, বলেছেন বর্তমান চেয়ারম্যান তবিবুর রহমান খান। তিনি বলেন,যারা আমাকে দিয়ে সুযোগ নিতে পারেনি তারাই আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করছে। করোনাকালিন সময়ে আমিও সরকারি সুবিধার বাইরেও নিজের সাধ্য মতো জনগনকে সাহায্য করেছি বলে দাবী করেন তিনি।

এই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌড়ে মাষ্টার সিরাজুল ইসলাম,আব্দুল কাদের তবিবুর রহমান খান এবং আজাদ রহমান খানসহ কেউই বাদ পড়ছেননা বলে মনে করছেন স্থানীয়া।

জগদিশপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি (দোগাছিয়া আহসান নগর আলিম মাদ্রাসা) অধ্যক্ষ মাওলানা রবিউল ইসলাম বলেন, জনগনের ইচ্ছাতেই এবং পরিবেশ পরিস্থিতি ভাল হলে নির্বাচন করবো।

২০০৩ সালে নির্বাচিত জামাতের প্রার্থী আব্দুর রহমানও এবার স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বলে জানিয়েছেন।