চৌগাছার প্রকৃত মুজিব আদর্শের একজন মানবিক মাসুদ চৌধূরী

0
315

জিয়াউর রহমান রিন্টুঃ

আদর্শের লড়াইয়ে কোন সমঝোতা নেই। নেই কোন দেনাপাওনা। সেকথাই যেনো সত্যি প্রমান করলেন মুজিব আদর্শে পথ চলা যশোরের চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মেহেদি মাসুদ চৌধূরী। দলের যত কঠিন সময়ই আসুক না কেনো বা কোনো দূর্দিন জন নেত্রী শেখ হাসিনার আদেশ সর্বদা মাথা পেতে নিতে দ্বীধাবোধ করেননা তিনি। স্বৈরাচার পতনের আন্দোলন থেকে ২০০০ সালের বন্যা কোনটাতেই পিছিয়ে থাকেননি তিনি।
তাইতো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনার এবারের করোনা মহামারি প্রতিরোধের যুদ্ধে দক্ষিনাঞ্চলের প্রথম সারির যেকজন রাজনৈতিক যোদ্ধার কথা চির স্মরনীয় হয়ে থাকবে তিনি তাদের মধ্যে অন্যতম।
২২ মার্চ করোনা সচেতনতায় রাস্তায় নেমে সাধারন মানুষজনকে সচেতন করতে কখনো মাস্ক নিয়ে কখনো মাইক হাতে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে উল্কার বেগে ছুটে বেড়িয়েছেন তিনি। জননেত্রী শেখ হাসিনা করোনা মহামারির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনার পাশাপাশি দেশের অসহায় মানুষের খাদ্যাভাব দূর করতে বাড়িতে বাড়িতে খাদ্য পৌছে দেওয়ার ঘোষনা দেওয়া মাত্র আর একটি নতুন যুদ্ধের সূচনা হয়। সেই যুদ্ধে উপজেলায় তিনেই প্রথম যোদ্ধা। তাইতো উপজেলার এ অকুতোভয় মুজিব সৈনিককে উপজেলাবাসি ভালবেসে “মানবতার ফেরিযালা” নামে আখ্যায়িত করেছে।
যুদ্ধে অংশগ্রহনের জন্য সরকারের বা ক্ষমতাসীন দল হিসেবে আওয়ামী লীগের দরীয় কোন চাপ কোনো নেতার উপরে নেই। অন্যদিকে কেউ তাকে শিখিয়ে দেইনি বা উৎসাহিতও করেনি। শুধুমাত্র একজন মা শেখ হাসিনার কথা মাথায় নিয়েই তিনি চালের বস্তা কাধে নিয়ে ছুটতে শুরু করলেন। কোথাই চললেন বা কতো দিন চলবেন,জানা নেই তার। শুধু উপজেলার কেউ যেন খাদ্যের জন্য কষ্ট না পাই,এটাই তার লক্ষ্য।
শুরু হলো তার নতুন যুদ্ধ। কঠিন সে যুদ্ধে দিনরাত নেই,রোদবৃষ্টি নেই,নেই কোন জাত ধর্মের বাছবিচার। উপজেলার সর্বত্র,সর্ব শ্রেনী পেশার,ধর্ম বর্নের মানুষের কাছে তার ছুটে চলা। মৃত্যুভয়হীন এই যোদ্ধাই হচ্ছেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শে গড়ে উঠা যশোরের চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও ১ নং ফুলসারা ইউনিয়নরে চেয়ারম্যান মেহেদি মাসুদ চৌধুরি।
২৫ মার্চ থেকে তিনি উপজেলার গরীবদুখি মানুষের মুখে খাবার যোগাতে সম্পূর্ন নিজ তাগিদে ও অর্থায়নে যখন যেভাবে পেরেছেন খাদ্য সহযোগিতা করে চলেছেন মানবতার এই ফেরিয়ালা।
২৫ এপ্রিল তার একমাস পূর্ন হল। এ এক মাসে তিনি উপজেলার ১৭ হাজার মানুষকে খাদ্য সহযোগিতা দিয়েছেন। মাসপূর্তি দিনে তিনি উপজেলার নির্মান ও বাস শ্রমিক,ভ্যান চালক নর সুন্দরসহ ১ হাজার মানুষকে খাদ্য সহযোগিতা দিলেন।
তবে এখানেই শেষ না। সামনের দিনেও অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানোর দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে উপজেলা আওয়ামী লীগের এ সাধারন সম্পাদক বলেন,“ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রকৃত সৈনিকদের কখনো মৃত্যুভয় স্পর্শ করতে পারিনি। আমার নেত্রীর করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে যদি আমার উপজেলার কেউ অনাহারে থাকে তবে আমরা সে যুদ্ধে পরাজিত হবো। তাই প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার খাদ্য সাহায্যের পাশাপাশি আমার এ ব্যক্তি উদ্যেগ যদি সামান্য কাজেও আসে তাহলে আমার রাজনৈতিক জীবন সার্থক হবে।”
তবে তার এ খাদ্য সহায়তা কাজে যে বাধা আসেনি তা কিন্তু নয়। তবু সে বাধাকে তিনি অতিক্রম করে দীর্ঘ এক মাস মানুষকে খাদ্য সহযোগিতা করেছেন। যাই হোকনা কেনো ১৭ হাজার মানুষের মুখে একবেলার খাদ্য হলেও যে তিনি তা জুটিয়েছেন তা বলাইবাহুল্য। তাইতো উপজেলার সর্বত্রই মুজিব আদর্শের এই অকুতোভয় সৈনিক যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মেহেদি মাসুদ চৌধূরী শুধু একজন রাজনৈতিক নেতাতেই সীমাবদ্ধ না থেকে হয়েছেন গরীবের বন্ধু ও মানবতার ফেরিয়ালা।