চৌগাছায় এমপির অনুষ্ঠান জানানো হলো না সাংবাদিকদের

0
467

নিজস্ব প্রতিনিধি

যশোরের চৌগাছায় প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী-২০২২ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের সামনে এই প্রদর্শনীতে ৩৫টি স্টল দেন প্রাণিসম্পদের সাথে সংশ্লিষ্টরা। প্রদর্শনীতে বিভিন্ন প্রজাতির গরু, ছাগল, হাঁস, মুরগি, গাড়লসহ প্রাণিসম্পদ সংশ্লিষ্ট দ্রব্যাদিরও স্টল দেয়া হয়।
তবে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী ও পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ শীর্ষ জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গকে অতিথি করা হলেও স্থানীয় সাংবাকিদের অনুষ্ঠানের বিষয়ে জানানো হয়নি। দেশের সকল উপজেলায় প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হলেও একটি জাতীয় অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের না জানানোয় স্থানীয় সাংবাদিকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।
এদিকে প্রদর্শনী শেষে দুপুর ২টার সময় প্রাণিসম্পদ কার্যালয় চত্বরে সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপজেলা প্রাণি সম্পদক কর্মকর্তা প্রভাষ চন্দ্র গোস্বামীর সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অব) অধ্যাপক ডাক্তার নাসির উদ্দিন। বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ড.মোস্তানিছুর রহমান। তবে অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সভাপতিত্ব করার কথা থাকলেও তিনি যশোরে একটি মিটিংয়ে থাকায় অনুষ্ঠানে ছিলেন না।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের জেষ্ঠ সহ-সভাপতি পাতিবিলা ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান সহিদুল ইসলাম মিয়া, উপজেলা পরিষদ নারী ভাইস চেয়ারম্যান নাজনীন নাহার পপি, সুখপুকুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হবিবর রহমান, চৌগাছা সদর ইউপি চেয়ারম্যান উপজেলা মুৎস্যজীবি লীগের সভাপতি আবুল কাশেম, ধুলিয়ানী ইউপি চেয়ারম্যান এসএম মোমিনুর রহমান প্রমুখ।
চৗগাছা প্রেসক্লাবের সভাপতি দৈনিক ভোরের কাগজ ও ডেইলি অবজারভারের চৌগাছা প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান রিন্টু বলেন, একটি জাতীয় অনুষ্ঠান এবং যে অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্যসহ উপজেলার শীর্ষ জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিরা অতিথি সে অনুষ্ঠানের বিষয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানানো হয়নি। এটা শিষ্টাচার বহির্ভূত। অনুষ্ঠানের নিউজ করার জন্য হলেও সাংবাদিকদের জানানোর নিয়ম আছে। তিনি বলেন ওই কর্মকর্তার নানা অনিয়মের খবর আমরা প্রকাশ করেছি। এজন্যও তিনি আমাদের না জানাতে পারেন।
এবিষয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা প্রভাষ চন্দ্র গোস্বামী মোবাইলে জানান, আমার অফিসের কর্মচারীকে দিয়ে চিঠি পাঠিয়েছি।
উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসের একটি সূত্র জানিয়েছে, করোনার সময়ে গাভী ও পল্ট্রী প্রাণোদনার অর্থ নিয়ে চৌগাছায় ব্যাপক অনিয়ম হয়। সেই অনিয়মসহ উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা প্রভাষ চন্দ্র গোস্বামীর নানা অনিয়মের খবর স্থানীয় সাংবাদিকরা বিভিন্ন সময়ে সংবাদ প্রকাশ করেন। পরে সংসদ সদস্য সেসব বিষয়ে তাঁর কাছে কৈফিয়ত তলব করেন। এতে তিনি চৌগাছার সাংবাদিকদের প্রতি ক্ষিপ্ত হন। সে কারনে তিনি বিভিন্ন সরকারি অনুষ্ঠানের বিষয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানানো বন্ধ করে একইসাথে সংসদ সদস্য এবং সাংবাদিকদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন।