চৌগাছায় করোনা আক্রান্তের হার প্রায় ৫৬ শতাংশ!

0
190

নিজস্ব প্রতিনিধি

যশোরের চৌগাছায় জোর কদমে প্রভাব বিস্তার করে চলেছে কোভিড-১৯ বা করোনা মহামারি।
গত ৪দিনের ৮০ জনের নমুনা পরীক্ষার মধ্যে ৫৯ জনের ফলাফলে ৩৩ জন করোনা পজেটিভ হয়েছেন। আক্রান্ত ৩৩ জনের মধ্যে ২১ জনই পৌরসভার বাসিন্দা। সে হিসেবে বর্তমানে আক্রান্তের হার প্রায় ৫৬ শতাংশ।
সবমিলিয়ে (২০২০ সালের মার্চ থেকে চলতি বছর জুন মাস পর্যন্ত) উপেজলাতে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩২৫ জন। এর মধ্যে চলতি বছর ফেব্রুয়ারী মাসে করোনা আক্রান্ত কেউ না থাকলেও জুন মাসেই সেই সংখ্যা ১২৩ জনে দাড়িয়েছে। এই আক্রান্তের মধ্যে পৌরসভাতেই রয়েছেন ৩৯ জন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফুন্নাহার লাকি এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
সরকারিভাবে চলতি জুন মাসে করোনায় আক্রান্ত হয়ে উপজেলায় মৃত্যু হয়েছে ৩ জনের। এছাড়া করোনা উপসর্গসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে গত চার দিনে আরো ১৪ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।
মহামারির এই প্রভাব বিস্তারের বিষয়ে সরকারি বিধি নিষেধ অমান্য করাকে প্রধান কারন হিসেবে দেখছেন সকলেই। সেইসাথে এই মহামারিকে তুচ্ছতাচ্ছিল্য করাটাও প্রভাব বিস্তারের একটি কারন। আবার উপসর্গ আছে এমন ব্যক্তি সেটিকে সাধারন ঠান্ডা জ্বর ভেবে হয়তো পরীক্ষা করাতে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আসছেন না। যার ফলে খুব সহজেই তার পাশের জন আক্রান্ত হচ্ছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.লুৎফুন্নাহার লাকি বলেন,“ এই রোগের উপসর্গ থাকলে অবশ্যই পরীক্ষা করতে হবে। কারন পরীক্ষায় যদি করোনা পজিটিভ হয় তাহলে এক ধরনের আবার নেগেটিভ হলে মানে সাধারন ঠান্ডা জ¦র কাশি হলে অন্য ধরনের চিকিৎসার প্রয়োজন। তাই যারা এধরনের উপসর্গে ভ’গছেন তারা অবশ্যই পরীক্ষা করতে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসুন। সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়ে থাকে। সকলকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে বার বার অনুরোধ করে ডা.লুঃফুন্নাহার লাকি বলেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ছাড়া এই মহামারির সংক্রমন রোধ করা খুবই কঠিন।