চৌগাছায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় নিহত ১

0
7343

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের চৌগাছায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় শওকত আলী (৫০) নামে একজন নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুরে উপজেলার হাকিমপুর ইউনিয়নের হাজিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি পেশায় রাজমিস্ত্রি।
স্থানীয়রা জানায়, হাজিপুর গ্রামের জনৈক সেলিমের বাড়িতে কাজে যান শওকত। সেখানে তার ভাবির নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দী পলি পারভীনের সাথে তার বাকবিতন্ডা হয়। পরে শওকত পরিবারের লোকজন নিয়ে সেখানে গেলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। একপর্যায়ে তার বুকে একটি ইট লাগে। এতে তার মৃত্যু হয়।
গত ১১ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নিহতের ভাবি সাহিদা বেগম তালগাছ প্রতীক নিয়ে সংরক্ষিত মহিলা আসনে নির্বাচন করেন। তার প্রতিদ্বন্দী পলি পারভীন হেলিকপ্টার প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেন। তারা দুজনই নির্বাচনে পরাজিত হন।
যশোর পুলিশের মুখপাত্র ডিবি ওসি রুপণ কুমার সরকার জানান, শনিবার হাজীপুর গ্রামে ভিকটিম শওকত আলী জনৈক সেলিমের বাড়িতে বিল্ডিং এর নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করছিলেন। এমন সময় তার প্রতিবেশী পলি পারভীন এবং তার ছেলে ইমরান এসে এলাকায় পাওনা টাকাসহ পূর্ব বিরোধের বিষয় নিয়ে তর্ক বিতর্ক শুরু করে । একপর্যায়ে ভিকটিম শওকত আলী রাগান্বিত হয়ে তার বাড়িতে গিয়ে ছেলে এবং ভাইদের ডেকে নিয়ে আসে। ভিকটিম শওকতের কথা শুনে তার ছেলে এবং ভাইয়েরা হাতে লাঠি নিয়ে ঘটনাস্থলে আসিলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে উক্ত পলি পারভীন এবং তার ছেলে ইমরান দৌঁড়ে তাদের ঘরে ঢুকে দরজা আটকে দেয় এবং ভিকটিম শওকত আলী খানেরর ছেলেরা পলি পারভিনের ঘরে ইট ও লাঠি দিয়ে হামলা চালায়। এই উত্তেজনাকর পরিস্থিতি দেখে রাস্তায় থাকা ভিকটিম শওকত আলী এবং পার্শ্ববর্তী জনৈক লতিফা বেগম অসুস্থ হয়ে পড়ে যায়। তখন ভিকটিমের ছেলেসহ উপস্থিত লোকজন ভিকটিম শওকত আলীকে ধরাধরি করে নিয়ে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে। ভিকটিম শওকত আলী খানের লাশ থানায় আনা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল যশোর মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।