চৌগাছায় বিএনপি নেতার পদত্যাগ

0
735

নিজস্ব প্রতিনিধি

যশোরের চৌগাছায় ইউনিয়ন বিএনপির একজন যুগ্ম-আহবায়ক দলীয় পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। পদত্যাগ পত্র পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক ইউনুচ দফাদার।
গত ১৭ ফেব্রুয়ারি খায়রুল দল থেকে পদত্যাগ করে উপজেলার নেতৃবৃন্দের কাছে লিখিত দিয়েছেন। পদত্যাগকারি খাইরুল পাতিবিলা গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে এবং পাতিবিলা ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক।

এ বিষয়ে খায়রুল বলেন,আমি শারিকি অসুস্থতার কারনে পদত্যাগ করেছি। কিন্তু আপনি তো সম্পূর্ন সুস্থ উত্তরে তিনি এড়িয়ে যান।
উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক জহুরুল ইসলাম জানিয়েছেন,খায়রুল আমাকে একটি চিঠি দিয়েছে। কিন্ত আমি জরুরিভাবে ঢাকায় চলে আসার কারনে সেটি পড়তে পারিনি।
যুগ্ম-আহ্বায়ক ইউনুচ দফাদার বললেন,“ঠিক কি কারনে খায়রুল পদত্যাগ করছে তা বলতে পারবো না। তবে দলের মধ্যে বিভিন্ন সমস্যার কারনে সে পদত্যাগ করেছে বলে মনে হয়। দীর্ঘ দিন ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আতাউর রহমান লালের সাথে তার বনিবনা নেই বলে শুনেছি।
উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক ও পাতিবিলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আতাউর রহমান লাল খায়রুলের পদত্যাগের বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন।
তবে দলের একাধিক সূত্র দাবী করেছে দলের অভ্যন্তরে হাইব্রিড নেতাদের দৌরাতœ ও আধিপত্য বিস্তারে তৃনমুলের নেতা কর্মীরা কোনঠাসা। দলের বিভিন্ন নেতার সরকারি দলের সাথে সখ্যতা এবং আতœীয় করনের কারনে খুড়িয়ে খুড়িয়ে চলছে বিএনপির রাজনৈতিক কর্মকান্ড। সেসকল কারনে ত্যাগীদের মধ্যে অনীহা দেখা দিচ্ছে। তারই ফলস্বরুপ খায়রুল পদত্যাগ করেছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলা বিএনপির এক শীর্ষ নেতা বলেন, আতাউর রহমান লাল ইউনিয়নে চেয়ারম্যানি করলেও থাকেন পৌরসভায়। কিন্তু ইউনিয়ন নেতাদের দাবী ইউনিয়ন নির্বাচনে তারাই দলীয় মনোনয়নের হকদার। এসকল কারনেই ইউনিয়ন নেতাদের মধ্যে ক্ষোভ আছে। বিএনপির কোনো রাজনৈতিক কর্মকান্ডে আতাউর রহমান লালের অংশগ্রহন এমনকি এই পৌর নির্বাচনেও তার অবস্থান পরিষ্কার না। এসকল কারনেও খায়রুল পদত্যাগ করে থাকতে পারে।”