মাছ চুরির অপরাধে যুবককে দড়ি দিয়ে বেধে মারপিট

0
303

নিজস্ব প্রতিনিধি : যশোরের চৌগাছায় মাছ চুরির অপরাধে সোহেল (১৭) নামে এক যুবককে বেধে পিটিয়েছে পুকুরের মালিক।

মঙ্গলবার উপজেলার স্বরূপদাহ ইউনিয়নের কাসেম ভাটার মালিক এমনই একটি ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে একটি ভিডিও পাওয়াগেছে। রকি সোহেল নামে একটি ফেসবুক আইডি থেকে এদিন সন্ধ্যা আনুমানিক সাড়ে ৫টার দিকে ভিডিওটি আপলোড করা হয়। পরে সেটি ডিলিটও করা হয়েছে। সোহেল খড়িঙ্চা গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে। ঘটনার পরে ছেলেটিকে গ্রাম থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানাগেছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে ভাটা মালিক আবুল কাশেম বলেন ওই ছেলেকে আমার পুকুর পাহারা দেওয়ার জন্যে রেখেছিলাম। কিন্তু কয়েক দিন আগে সে গ্রাম থেকে একটি মাছ ধরার জাল নিয়ে এসে রাতে আদারে আমার সেই পুকুরের মাছ চুরি করতো। সেই অপরাধে তাকে একটু মেরেছি। মাছ চুরির অপরাধে আপনি কাউকে এভাবে দড়ি দিয়ে বেধে পিটাতে পারেন কিনা উত্তরে তিনি বলেন,“চোর ধরা পড়লে কি হয়??”
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওই ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মেম্বর মান্নান ব

লেন,আমি সারাদিন ইউনিয়ন পরিষদে ছিলাম। ঘটনাটি আমি ঠিক জানি না। তবে শুনেঠি ছেলেটি নাকি মাছ চুরি করেছিল। পরে তার মা এসে তাকে নিয়েগেছে।

এঘটনায় ভূক্তভোগীর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ওই ইউনিয়নের সংরক্ষিত আসনের মহিলা মেম্বর আদুুরির স্বামী বিল্লাল হোসেন বলেন,সোহেলদের বাড়ি আমার বাড়ির পিছনে। মারধোর খেয়ে সে গ্রাম থেকে চলেগেছে। আর সোহেলকে শুধু দড়ি দিয়ে বেধে মারধোরের পর তার মা,বোন ও সোহেলের চাচিকে দিয়ে কাগজে স্বক্ষর করিয়ে
তারপরে সোহেলকে ছাড়া হয়েছে।

সোহেলের মা রহিমা বেগম বলেন, আমি খবর পেয়ে গিয়ে দেখি সোহেল দাড়িয়ে আছে। পরে কাশেম আমার, আমার মেয়ে রত্না ও সোহেলের চাচি ফেরদৌসির স্বক্ষার করিয়ে তারপরে সোহেলকে ছেড়েছে।

কাগজে কাশেম যা বলে

ছে তার ভাটার ম্যানেজার বকুল লিখেছে আমরা শুধু স্বাক্ষর করেছি বললেন সোহেলের ছোট বোন রত্না।

এ বিষয়ে তারা থানায় কোনো অভিযোগ করবেন না বলেও জানান।