চৌগাছায় ৫ দিন পরে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা

0
102

নিজস্ব প্রতিনিধি

যশোরের চৌগাছায় একটি ধর্ষন প্রচেষ্টার ঘটনার ৫ দিন পরে মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ বলছে প্রাথমিক তদন্ত প্রক্রিয়া শেষ করতেই ৫দিন সময় পেরিয়েছে। কিন্তু ভুক্তভোগি গৃহবধূ ও তার পরিবারের দাবী, একটি পক্ষ ঘটনাটি ধামাচাপা দিয়ে মামলা বন্ধ রাখতে জোর তদবিরের কারনে অভিযোগ তদন্তকারি পৃুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাটি পারিবারিকভাবে আপোষ করার জন্য বলেছিলেন। সরেজমিন তদন্তে সাংবাদিকদের এমনটাই জানিয়েছেন ভুক্তভোগি গৃহবধূ ও তার পরিবার। সরেজমিনে তদন্তে ভূক্তভোগি গৃহবধূ তার স্বামী,শ্বশুড়,শাশুড়িসহ গ্রামের অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য গত ৩ অক্টোবর শনিবার সকাল ৭-৭.৩০টার দিকে উপজেলার স্বরুপদা পশ্চিমপাড়া গ্রামে এক গৃহবধূকে পাশের বাড়ির আব্দুর রশিদের ছেলে সোহাগ হোসেন তার গোসলখানায় প্রবেশ করে জোরপূর্বক শ্লীতহানির চেষ্টা করে। এ সময় গৃহবধূটি তার নিজ শ্বশুড় বাড়ির গোসলখানায় গোসল করছিলেন। ঘটনার সময় বাড়িতে কেউ ছিলনা বলেও জানিয়েছেন গৃহবধূ। এঘটনায় সেদিনই ওই ভুক্তভোগি গৃহবধূ নিজে বাদী হয়ে চৌগাছা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজীব বলেন ঘটনা তদন্ত করে মামলা নিতে তদন্তকারি কর্মকর্তাকে বলে দিয়েছি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে তদন্তকারি কর্মকর্তা চৌগাছা থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই কাওসার বলেন, তদন্তকালে ঘটনাটির সত্যতা পেয়েছি। এবং ৭ অক্টোবর ভূক্তভোগি গৃহবধূ বাদী হয়ে এবং সোহাগ হোসেনকে (২২) অভিযুক্ত করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে (অসৎ উদ্দেশে যৌন নিপিড়ন করার অপরাধ) মামলা হয়েছে। আপনি ঘটনাটি আপোষ করতে বলেছেন কিনা উত্তরে তিনি পাল্টা প্রশ্ন করে বলেন,এখানে পুলিশের কোনো স্বার্থ আছে নাকি?