চৌগাছা থেকে টাকাসহ ব্যাংক ডাকাত আটক

0
237

নিজস্ব প্রতিনিধি


যশোরের চৌগাছা থেকে চুয়াডাঙ্গার ব্যাংক ডাকাত রাসেলকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ। চুয়াডাঙ্গার ডিবি পুলিশ এবং চৌগাছা ও মহেশপুর থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে মঙ্গলবার সকালে চৌগাছার বুন্দলিতলা গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। এসময় আটক স্থান থেকে ডাকাতির ২ লাখ ৯০ হাজার টাকাও উদ্ধার করে পুলিশ। আটক রাসেল ঝিনাইদাহ জেলার কোটচাদপুর উপজেলার ঘিঘাটি গ্রামের বাসিন্দা। এঘটনায় আশ্রায় দাতা রহমত আলীকেও অটক করেছে পুলিশ।

চৌগাছা থানার এসআই বজলুর রহমান জানান, রাসেলের মোবাইল ফোন ট্রাকিং করে তার অবস্থান নিশ্চিত হয়েই বন্দুলিতলা গ্রামে রাসেলের পূর্বপরিচিত আব্দুস সাত্তারের ছেলে রহমত আলীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। এসময় রাসেলের দেওয়া তথ্যমতে রহমত আলীর বাড়িতে লুকিয়ে রাখা ২ লাখ ৯০ হাজার টাকাও উদ্ধার করা হয়। অভিযানে চুয়াডাঙ্গা ডিবি পুলিশ এবং চৌগাছা ও মহেশপুর থানার পুলিশ অংশগ্রহন করে।

এঘটনায় আশ্রয়দাতা রহমত আলীর স্ত্রী মুর্শিদা বেগম জানান, ‘চারদিন আগে রাসেল আমাদের বাড়িতে আসে। এসে জানায় সে স্ত্রী তালক দেওয়ার কারনে তার নামে মামলা হয়েছে। যে কারনে কয়েকদিন লুকিয়ে থাকার জন্য এখানে এসেছে। আমি প্রথমে রাজি না হলে রাসেল বলে দু’একদিন থেকেই চলে যাবে। সোমবার রাতে আমার কাছে ৪০ হাজার টাকা দিয়ে বলে এটা রাখেন, কাল সকালে চলে যাওয়ার সময় নেব। মঙ্গলবার সকালে পুলিশ আসার পরে জানতে পারলাম রাসেল ব্যাংক ডাকাতির আসামী। মুর্শিদা আরো জানান রাসেল কখন আমাদের চাউলের ড্রামের মধ্যে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা লুকিয়ে রেখেছিল আমরা জানিনা।

চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজিব আটকের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য গত ১৫ নভেম্বর চুয়াডাঙ্গার জীবন নগরের উথলী সোনালী ব্যাংকের শাখায় ডাকাতি হয়। দিনেদুপুরে তিন জন ডাকাত হেলমেট পরে ব্যাংকে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে সকলকে জিম্মি করে প্রায় ৯ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। ওই ঘটনায় অজ্ঞাত তিনজনকে আসামী করে জীবননগর থানায় মামলা হয়।