জার্মানিতে প্রথমবারের মতো দেওয়া হল মাইকে আজান

0
50

জার্মানি প্রতিনিধি : জার্মানির ওয়েস্ট ফালেন অঙ্গরাজ্যের কোলন শহরের কেন্দ্রীয় মসজিদে প্রথমবারের মাইকে আজান দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার জুমার নামাজের দিন মাইকে আজান দেন ২৯ বছর মসজিদের ইমাম মুস্তাফা কাদের। আজান শুনে নামাজ আদায় করতে আসেন বহু সংখ্যক মুসল্লী ও স্থানীয়রা।

ইউরোপের বিখ্যাত এই নগরীর মেয়র হেররিটে রেকে গত বছর এই অনুমতি দেন। মসজিদটিতে সংস্কৃতির পাইলট প্রকল্পের আওয়তায় শর্ত সাপেক্ষে দু’বছরের জন্য প্রতি শুক্রবার দুপুর ১২টা থেকে তিনটার মধ্যে মাত্র পাঁচ মিনিট আজানের অনুমতি দেওয়া হয়।
তবে শব্দের মাত্রা যাতে ৬০ ডেসিবেলের উপরে না যায় সে বিষয়েও খেয়াল রাখার কথা শর্তে উল্লেখ করা হয়।

এসময় নগরটির মেয়র রেকে দেশটির গণমাধ্যমে বলেন, মসজিদের মাইকে আজান প্রচারের মাধ্যমে এদেশে বসবাসরত অভিবাসী মুসলিম সম্প্রদায়ের ও স্থানীয়দের মধ্যে সম্প্রীতির বন্ধন তৈরি হবে।

এদিকে, নগর প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তে খুশি অঞ্চলটিতে বসবাসরত সাধারণ ধর্মপ্রাণ মুসলিমরাও। তবে হঠাৎ করেই এমন একটি কঠিন সিদ্ধান্তে দেশটির সাধারণ নাগরিকসহ রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে অনাস্থাও রয়েছে। বিশেষ করে রক্ষণশীল ও উগ্র চরমপন্থী রাজনৈতিক দলগুলো মসজিদে আজান দেওয়ার এই মডেল প্রকল্পকে দেশের মূল্যবোধ ও সংস্কৃতিবিরোধী আখ্যা দিয়েছে।

তাছাড়া অন্যান রাজনৈতিক দলগুলো জানিয়েছে, এ সিদ্ধান্তের ফলে জার্মানিতে মুসলিমরা ভবিষ্যতে শক্তি প্রদর্শনের চেষ্টা করবে, যা সমাজের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করতে পারে।

এর আগে জার্মানির পশ্চিমের একটি শহরে আজান দেওয়া নিষিদ্ধ করেছিল একটি আদালত। তবে গত বছরের সেপ্টেম্বরে তুরস্কের মুসলিম অভিবাসীদের ধর্মীয় সংগঠন দিতিব দেশটির উচ্চ আদালতে আপিল করলে উচ্চ আদালত নিম্ম আদালতের দেওয়া রায় বতিল করেন।

ওই সময় আদালত জানান, মসজিদে আজান ধর্মীয় অধিকার। রাষ্ট্র সেখানে হস্তক্ষেপ করতে পারে না এবং এ অধিকার অন্য ধর্মের অধিকারেও হস্তক্ষেপ করে না। ২০১৮ সাল থেকে সেখানে আজান নিষিদ্ধ হয়েছিল। জার্মানির ওই আদালত জানিয়ে দিয়েছে, সপ্তাহে একদিন যেভাবে সেখানে আজান দেওয়া হতো, তা আগের মতোই করা যাবে। শুধু তাই নয়, আগে ওই মসজিদে সপ্তাহে একদিন ২ মিনিট ধরে আজান দেওয়া হতো।

গত ২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠিত কোলন কেন্দ্রীয় মসজিদটির উদ্বোধন করতে করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান। অপূর্ব সৌন্দর্যের কারুকাজ করা এটিই জার্মানির বৃহত্তম মসজিদ।