জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে যশোরে ২ শ্রমিক নেতা গুলিবিদ্ধ

0
337

নিজস্ব প্রতিবেদক : তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যশোরে ২ শ্রমিক নেতা গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এরা হচ্ছেন যশোর পরিবহন সংস্থা শ্রমিক সমিতির সহ সাধারণ সম্পাদক মিন্টু গাজী ও সদস্য ইমদাদুল হক। আহত মিন্টু গাজীর পেটে গুলি ঢুকে রয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় এয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে তাকে ঢাকা আনা হচ্ছে বলে সমিতির সাবেক সভাপতি আজিজুল আলম মিন্টু জানিয়েছেন।
আজ সোমবার বিকেলে যশোর শহরের বকচর হুঁশতলা এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। জুয়া খেলা নিয়ে বিরোধের জের ধরে বিল্লাল নামে এক ব্যক্তি গুলি ছোড়ে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে।
আহত ইমদাদুলের ভাই বদরুল আলম বলেন,আজ সোমবার বিকেল সোয়া চারটার দিকে ইমদাদুল ও মিন্টু গাজী ইফতারি কেনার জন্য হেঁটে হুঁশতলা মোড়ে যাচ্ছিলেন। কপোতাক্ষ লায়ন্স চক্ষু হাসপাতালের পাশে কপোতাক্ষ প্লটের সামনে ওঁত পেতে থাকা বিল্লাল ওরফে চোর বিল্লাল নামে এক দুর্বৃত্ত তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। গুলি ইমদাদুলের হাতে আঘাত করে মিন্টুর পেটে বিদ্ধ হয়।
তিনি জানান, মিন্টু গাজী (৫০), ইমদাদুল (৫০), বকচর এলাকার বিল্লাল, লাল্টু, সাইফুল, লিটন প্রতিদিন হুঁশতলা কবরস্থানের পাশে একটি বাগানে জুয়া খেলেন। এই জুয়া খেলা নিয়ে তিন-চার দিন আগে তাদের মধ্যে বিরোধ হয়। তারই জের ধরে আজ বিল্লাল ওই দুইজনকে গুলি করে।
যশোর জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডের ইন্টার্ন ডাক্তার মুক্তামণি জানান, মিন্টুর পেটে গুলিবিদ্ধ হয়েছে। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। সেই কারণে তাকে ঢাকা রেফার করা হয়েছে। আর আহত ইমদাদুল আশঙ্কামুক্ত।
পরিবহন সংস্থা শ্রমিক সমিতির (রেজিস্ট্রেশন নম্বর ২২৭) সাবেক সভাপতি আজিজুল আলম মিন্টু জানান, মিন্টু গাজীকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢাকা নেওয়া হয়েছে।
যশোর কোতয়ালী থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান জানান, ঘটনা শোনার পর দায়ী ব্যক্তিদের ধরতে পুলিশের একাধিক টিম অভিযান শুরু করেছে। কারা কী কারণে ঘটনাটি ঘটিয়েছে, তা-ও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
শ্রমিক নেতা ষষ্ঠি দত্ত জানান, আহত মিন্টু গাজী বকচর হুঁশতলা এলাকার হামিদ গাজীর ছেলে। তিনি পরিবহন সংস্থা শ্রমিক সমিতি যশোরের সহসাধারণ সম্পাদক। আর আহত ইমদাদুলও একই সংগঠনের সদস্য।