জেলা ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগে শেখ কামালের ৭৩ তম জন্মবার্ষিকী পালিত

0
33

ডি এইচ দিলসান : বাঙালি জাতিসত্তার মহানায়ক ,স্বাধীনতার মহান স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এর ৭৩ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে পথিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদনসহ আলোচনা সভা ও বিভিন্ন খেলার আয়োজন করে জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও জেলা প্রশাসন। মাত্র ২৬ বছরের জীবনে বাঙালির সংস্কৃতি ও ক্রীড়াক্ষেত্রে বিরল প্রতিভাবান উদ্যোক্তা হিসেবে তিনি নিজেকে অসামান্য উচ্চতায় প্রতিষ্ঠিত করে গেছেন।
শুক্রবার সকাল ১০ টায় শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এর ৭৩তম জন্মবার্ষিকীতে যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি আরো বলেন , ১৯৪৯ সালের ৫ আগস্ট গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন শেখ কামাল। ঢাকার শাহীন স্কুলে পড়াকালীন খেলাধুলার সব আয়োজনে তিনি ছিলেন অপরিহার্য।ফুটবলের প্রতি টান ছিল বেশি। তিনি ঢাকা কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হয়েছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ হলের ছাত্র হিসেবে বাস্কেটবল টিমের ক্যাপ্টেন ছিলেন শেখ কামাল। তিনি আবাহনী ক্রীড়াচক্র প্রতিষ্ঠা করেছেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ষড়যন্ত্রকারীদের পৈশাচিক হামলায় শেখ কামালের মৃত্যু হলেও তিনি বেঁচে আছেন আমাদের স্মৃতিতে, অন্তরে।পারিবারিক পরিবেশ থেকেই সবকিছুর পাশাপাশি রাজনীতির পাঠও গ্রহণ করেছিলেন শেখ কামাল। বাঙালির অধিকার আদায়ের সংগ্রামে পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ধারাবাহিক আপসহীন সংগ্রামের বিষয়টি প্রত্যক্ষ করেই বাঙালি জাতীয়তাবাদের চেতনায় তিনি নিজেকে তৈরি করেছিলেন। শহরের শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামের আমেনা খাতুন ক্রিকেট গ্যালারির স্থাপিত অস্থায়ী মঞ্চে যশোর ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব কবিরের সভাপতিত্বে যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলাল আহমেদ বলেন বলেন, তরুণ সমাজের চিত্তের পুফুল্ল­তা নিশ্চিত করা ও বিপথে ধাবিত না হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক জাগরণের প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করেছিলেন শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল। তাই মাত্র ২৬ বছরের জীবনকালে তাঁকে নানামুখি উদ্যোগ নিতে দেখা যায়। বন্ধু, শিল্পী ও সহকর্মীদের নিয়ে গড়ে তুলেছিলেন ‘স্পন্দন শিল্পীগোষ্ঠী’। জীবনযাপনে তিনি ছিলেন খুবই সাধারণ। ১৯৭৫ সালের ১৪ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খেতাবপ্রাপ্ত দেশসেরা অ্যাথলেট সুলতানা খুকুকে তিনি পারিবারিকভাবে বিয়ে করেন। এ ছাড়া বক্তব্য দেন বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রফিকুল হাসান, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, যশোর সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুকুমার দাস এবং যুব উন্নয়নের উপপরিচালক শহিদুল ইসলাম সহ আরো অনেকে।
সভাপতির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব কবির বলেন, আওয়ামী লীগের জন্মের বছরেই শেখ কামালের জন্ম। আওয়ামী লীগের পথচলার যে ধারাবাহিকতা, তার প্রভাব স্বাভাবিকভাবেই শেখ কামালের জীবনের সাথে ওতপ্রোতভাবে যুক্ত হয়ে গেছে। ছাত্রলীগের কর্মী ও সংগঠক হিসেবে ৬ দফা, ১১ দফা আন্দোলন এবং ৬৯ এর গণ-অভ্যুত্থানে বীরোচিত অংশগ্রহণ ছিল তাঁর।
এ দিকে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩ তম জন্মদিন উপলক্ষে যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে প্রীতি ভলিবল ম্যাচের আয়োজন করা হয়। নাদিরা ইসলাম ভলিবল গ্রাউন্ডে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংস্থার সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব কবীরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলাল আহমেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রফিকুল ইসলাম সহ আরো অনেকে।
অপর দিকেও স্টেডিয়ামে প্রীতি ফুটবল ম্যাচের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংস্থার সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব কবীরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলাল আহমেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রফিকুল ইসলাম সহ আরো অনেকে।
ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রফিকুল ইসলাম এবং সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব কবির।