ঝিকরগাছায় পরকীয়া প্রেমে প্রেমিকের হাতে এক গৃহবধু খুন

0
1016

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঝিকরগাছা : যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার হাজিরবাগ ইউনিয়নের সোনাকুড় গ্রামে পরকীয়া প্রেমে প্রেমিকের হাতে এক গৃহবধু খুন হয়েছে। পুলিশ খুনির মানিব্যাগ জব্দ করেছে। নিহত গৃহবধুর সোনার গহনা ও মোবাইল ফোন নিয়ে গেছে খুনি। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ৭ বছর আগে সোনাকুড় গ্রামের আব্দুল মালেকের একমাত্র কন্যা মনিরা খাতুনকে উপজেলার নির্বাসখোলা ইউনিয়নের নওয়ালী গ্রামের সিরাজুল ইসলামের পুত্র হাসানুজ্জামানের সাথে বিয়ে হয়। তাদের ছয় বছরের একটি কন্যা সন্তান আছে। এবং মনিরা খাতুন দুই মাসের অন্তসত্ত্বা। গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে মনিরা খাতুন (২৬) সোনাকুড় গ্রামে বাপের বাড়ী আসে। রাতে সে সোনার গহনা পরে চাচা আব্দুর রাজ্জাকের বাড়িতে ঘুমাতে যায়। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী মনিরা খাতুন তার চাচী রাশিদা বেগম (৩০), ফুফু জাহানারা বেগম (৫০) ও চাচাতো ভাই সাইফুল ইসলাম (১৬) কে চেতনা নাশক ওষুধ খাওয়ায়। সকালে ঐ বাড়ির কেউ ঘুম থেকে না ওঠায় প্রতিবেশীরা তাদের ঘরে ঢুকে মনিরা খাতুনকে গলায় গামছা জড়ানো অবস্থায় মৃত এবং বাকী তিনজনকে অচেতন অবস্থায় পায়। তাদেরকে যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে বেলা ১১ টার দিকে ঝিকরগাছা থানা ও বাঁকড়ার পুলিশ ঘটনাস্থলে যেয়ে সোনারকুড় দক্ষিণ পাড়ার আব্দুল লতিফের ছেলে জাহিদুল ইসলাম শিমুল এর কলেজ পরিচয়পত্র সহ মানিব্যাগ এবং মায়ের উদ্দেশ্যে মনিরার লেখা একটি চিঠি উদ্ধার করে। তখন পুলিশ সহ এলাকাবাসীর সকল রহস্যের জট খোলে। চিঠিতে লেখা ছিল, “মা আমি শিমুলের সাথে চলে যাচ্ছি। তোমরা যদি আমাদের মেনে নেয়, তাহলে আমি ফিরে আসবো। আমাকে খোঁজাখুজি করার দরকার নেই”। গ্রামবাসী জানান, শিমুলের সাথে মনিরার অনেক আগে থেকে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। চিঠির ভাষ্য অনুযায়ী বৃহষ্পতিবার রাতে মনিরাকে নিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি দেয়ার কথা ছিল শিমুলের। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী মনিরা তার ঘরে, পাশের ঘরে থাকা সবাইকে চেতনা নাশক ওষুধ খাওয়ায়। রাতে সাবেক প্রেমিক শিমুল ঘরে এসে মনিরার সোনার গহনা, মোবাইল ফোন নিয়ে তাকে হত্যা করেছে বলে গ্রামবাসীর ও পুলিশের ধারনা।মনিরার ৬ বছরের একটি কন্যা ও সে দুই মাসের অর্ন্তসত্ত্বা বলে তার স্বামী হাসানুজ্জামান জানিয়েছেন। এব্যাপারে বাঁকড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের অফিসার ইনচার্জ শিকদার মতিয়ার রহমান জানান, ঘঠনাটি সম্পর্কে আমরা অনেক পরিস্কার। শিমুলকে ধরার জন্য জোর চেষ্টা চলছে। মনিরার লাশ ময়না তদন্তের জন্য নেয়া হয়েছে। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঝিকরগাছা থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here