ঝিকরগাছায় পাশাবিক নির্যাতনে গৃহবধুর আত্মহত্যা ॥ স্বামী আটক

0
273

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরে ঝিকরগাছায় দো সতীনা গ্রামে শাশুড়ী ও ননদের পাশবিক অত্যাচারে মমতাজ খাতুন(১৮) নামে এক নববধু কিটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে। রোববার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মমতাজ ওই গ্রামের ফজলুল করিমের ছেলে সেতু করিমের স্ত্রী এবং মনিরামপুর উপজেলার বাসুদেবপুর গ্রামের আব্দুর রহিম খাঁর মেয়ে৷ পুলিশ স্বামী সেতুকে আটক করেছে।
নিহতের ভাই বিল্লাল হোসেন ও বাবা রহিম খাঁ অভিযোগ করে জানান, এক বছর আগে মমতাজের সাথে সেতুর পারিবারিক বিবাহ হয়। বিয়ের পর সেতু মালেয়াশিয়ায় চলে যায়। সে এপ্রিল মাসে বাড়ি ফেরে। এর পর থেকে মমতাজের শাশুড়ী আছিয়া খাতুন ও ননদ শাবানা খাতুন নগদ ২লক্ষ টাকা ও যৌতুক বাবদ ট্রাক্টর দাবি করে মমতাজের পরিবারের উপর চাপ দিয়ে আসছিল। শনিবার ভাই বিল্লাল সেতুকে নগদ ৪০হাজার টাকা দেয় এবং বাকী টাকা ঈদের পর দেয়ার কথা জানিয়ে দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সেতু সহ শাশুড়ী ননদ মিলে মমতাজের ওপর মানুষিক নির্যাতন করতে থাকে। এ ঘটনায় মমতাজ রোববার বিকালে শশুর বাড়িতে কিটনাশক পান করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে ঝিকরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।
চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১১টা ৫০ মিনিটে ডাক্তার মাহাবুবা তার মৃত্যু ঘোষণা করেন। এদিকে হাসপাতালে দেখতে আসা স্বামী সেতুকে কোতয়ালি থানার এসআই সালাম আটক করে। কোতয়ালি থানার ডিউটি অফিসার সেতুকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here