ঝিকরগাছায় ফসলি জমিতে ভাটা নির্মাণের পায়তারা অব্যাহত

0
203

ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের ঝিকরগাছায় ফসলি জমিতে ইটভাটা নির্মাণের পায়তারা অব্যহত রয়েছে। কৃষি বিভাগের দেওয়া প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে উপজেলার বেজিয়াতলা গ্রামের আবু তালেব উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। জানা গেছে, ঝিকরগাছা-বাঁকড়া আবুল ইসলাম সড়কের মোহিনীকাটি বেজিয়াতলা মৌজার বটতলা এলাকায় একটি মহল ফসলি জমিতে ইটের ভাটা নির্মাণের পায়তারা করছে। এর বিরুদ্ধে এলাকাবাসী উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ সংশ্লিষ্ঠ দপ্তরে অভিযোগ করেছিলেন। এর পেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল জলিল ওই মৌজা সম্পর্কে তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য কৃষি বিভাগকে দায়িত্ব দেন। কিন্তু কৃষি বিভাগ ওই জমি অকৃষি, বেলে ও পরিত্যক্ত বলে ভুল তথ্য দিয়েছেন বলে অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে। অভিযোগ পত্রে আরো বলা হয়েছে ওই জমি তিন ফসলি আবাদি জমি। উপজেলার সবচেয়ে ভাল আলু, পেঁপেসহ যাবতীয় সবজি উৎপাদনের উত্তম জমি। তার পরও কৃষি বিভাগ ওই জমিকে পরিত্যক্ত বলে প্রতিবেদন দেওয়ায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়েছেন। এদিকে ওই ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা শিমুল রায় জানিয়েছেন ওই জমিতে আলু ও পেঁপে চাষ ভালো হয়। উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি এসএস আহম্মদ ফারুক শান্তি জানিয়েছেন, কোন অবস্থাতেই ফসলি জমিতে ইটভাটা নির্মাণ করতে দেওয়া হবে না। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দীপঙ্কর দাশ জানিয়েছেন, অভিযোগের ভিত্তিতে উদ্ভিদ সংরক্ষণকারী উপ-সহকারি কর্মকর্তা আব্দুল হককে সরেজমিনে তদন্তের জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। তিনি যে প্রতিবেদন দিয়েছেন, আমি সেটা ফরোয়ার্ড করেছি ইউএনও অফিসে। তবে সদ্য বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল জলিল জানিয়েছেন, কোন ফসলি জমিতে ইটভাটা নির্মাণ করতে দেওয়া হবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here