ঝিকরগাছায় মামলা করে ভিটে ছাড়া গৃহবধু সোনিয়ার পরিবার

0
211

ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : স্বামী মারাত্বক জখম হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন প্রায় ২ মাস। এদিকে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করে ভিটে ছাড়া হয়েছেন গৃহবধু সোনিয়া খাতুনের পরিবার। সোনিয়া খাতুন উপজেলার উত্তর গঙ্গাধারপুর গ্রামের সিদ্দিক হোসেনের স্ত্রী। মামলা সুত্রে জানাগেছে, গত ২৩ আগষ্ট মামলার বাদি গৃহবধুর ৫ বছরের শিশু কণ্যা রিয়া খাতুনসহ অন্যান্য বেশ কয়েকজন বাড়ির পাশে দোকানে খেলা করছিল। শিশুরা চিল্লাচিল্লি করায় একই গ্রামের শমসের আলীর ছেলে মিজানুর বাদির কণ্যাসহ অন্য শিশুদের চড় থাপ্পড় মারে। শিশুদের কান্নাকাটির এক পর্যায়ে ভিকটিম সিদ্দিক হোসেন মিজানুরের কাছে চড় থাপ্পড় মারার বিষয়ে জানতে চেয়ে বাড়িতে চলে যায়। অতঃপর মিজানুর একই গ্রামের আঃ রশিদ গাজীর ছেলে হায়দার গাজী, কালাম গাজী, মকবুল গাজির ছেলে সাজ্জাক গাজী, শমসের গাজির ছেলে সালাম ও মকবুল গাজীর ছেলে রশিদ গাজীকে সাথে নিয়ে ভিকটিমের বাড়িতে যায় এবং সিদ্দিক হোসেনকে ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্বক ভাবে জখম করে। এ ঘটনায় সিদ্দিক হোসেনের স্ত্রী সোনিয়া খাতুন বাদি হয়ে থানায় মামলা করতে গেলে থানা কর্তৃপক্ষ আদালতে মামলা করার পরামর্শ দেন বলে জানাগেছে। নিরুপায় হয়ে সোনিয়া খাতুন আদালতে ৬ জনকে আসামী করে মামলা করে। যার নং- জিআর ২৯৫/১৭। মামলা করার পর থেকে অভিযুক্তদের একের পর এক হুমকি-ধামকি ও উল্টো থানায় মিজানুরের করা মামলায় হয়রানীর ফলে গৃহবধু মামলার বাদি সোনিয়া খাতুন স্বামী ২ সন্তান নিয়ে ভিটে ছাড়া রয়েছে। এখনো পর্যন্ত ভিকটিম সিদ্দিক হোসেন আশংকাজনক অবস্থায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে সোনিয়া খাতুন জানিয়েছেন। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনসহ জনপ্রতিনিধিদের দৃষ্টি আকর্শন করেছেন অসহায় পরিবারটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here