ঝিকরগাছা কপোতাক্ষ নদের উপরে ঝুকিপূর্ণ ব্রীজটির উপর দিয়ে ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন ও মানুষ

0
403

উত্তম চক্রবর্ত্তী,ঝিকরগাছা থেকে ফিরে : যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের ঝিকরগাছা উপজেলার কপোতাক্ষ নদের উপর দিয়ে নির্মিত ব্রীজটির উপর দিয়ে ব্যাপক ঝুকি নিয়ে যানবাহন ও মানুষ চলাচল করছে। ব্রীজটির ধারন ক্ষমতা থেকে বেশী ওজন নিয়ে পণ্যবাহী ট্রাক ও বাস চলাচল করছে। যেকোন সময় ব্রীজটি ভেঙ্গে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশংকা করছে এলাকাবাসী।

জানা যায়, ব্রিটিশ আমলে কলকাতার সাথে যশোরের যোগাযোগ স্থাপনের জন্য ঝিকরগাছার কপোতাক্ষ নদের উপর দিয়ে ১৩০ মিটার দৈর্ঘ্য ও ৮ মিটার প্রস্থ এ ব্রীজটি নির্মিত হয়। ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্থানী সেনাবাহিনী এ ব্রীজের মধ্যভাগ ভেঙ্গে দেয়। দেশ স্বাধীনের পর ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের শাসনামলে ব্রীজটির মধ্যভাগ সংস্কার করে পুনঃস্থাপন করা হয়।
তথ্য সন্ধানে জানা যায়, দেশের সর্ববৃহৎ স্থল বন্দর বেনাপোল ও ভোমরা বন্দর কে যশোরসহ সারা দেশের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা সংযুক্ত করেছে এ ব্রীজ। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ, বাস, ট্রাক, পণ্যবাহী ট্রাক, বিভিন্ন যানবাহন হাজার হাজার টন মালামাল নিয়ে চলাচল করে। দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় বর্তমানে ব্রীজটি তার যৌবনতা হারিয়েছে। টলমলে অবস্থা বিরাজ করেছে। জ্যাম সৃষ্টি হয়ে ব্রীজের উপর কয়েকটি গাড়ী জমা পড়লে দুলতে থাকে ব্রীজটি। সে সময় ব্রীজের পরে মানুষের মাঝে আতংকের সৃষ্টি হয়। ব্রীজের দুই পাশের নাজুক অবস্থা এবং জনগণের দুর্ভোগ থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য সড়ক ও জনপদ বিভাগ পিচের রাস্তার উপর দিয়ে ইটের ছলিং করেছে। সড়ক ও জনপদ বিভাগ বলছে, ব্রীজটিকে অতি গুরুত্ব দিয়ে ঐ এলাকায় নতুন ব্রীজ নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে।
শার্শা, বেনাপোল ও ঝিকরগাছা ট্রাক মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক মুছা মাহমুদ জানান, ব্রীজটি বর্তমানে মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। দুটি গাড়ী পাশাপাশি গেলে পাশে কোন জায়গা থাকে না। ব্রীজটি কাঁপতে থাকে। জনমনে আতংক সৃষ্টি হয়। সড়ক ও জনপদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ব্রীজটি ঝুকিপূর্ন বিধায় ক্রস বর্ডার প্রকল্পের অধীনে জাইকার অর্থায়নে সেখানে চারলেন সড়কের সাথে সামজ্ঞাস্য রেখে ব্রীজ নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। যশোর-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির জানিয়েছেন, ব্রীজটির নাজুক অবস্থার কারণে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ব্রীজ নির্মাণের জন্য প্রকল্প দেয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here