“টানা ৫ দিনের ছুটির ফাঁদে বেনাপোল স্থলবন্দর!আমদানী রপ্তানী বন্ধ থাকছে”

0
292

নিজস্ব প্রতিবেদক, বেনাপোল: পবিত্র শবে কদর, সাপ্তাহিক ছুটি ও ঈদুল ফিতরের ছুটির কারণে টানা ৫ দিন দেশের সবচেয়ে বড় স্থলবন্দর বেনাপোল দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকছে।

ফলে স্থবির হয়ে পড়বে বেনাপোল-পেট্রাপোল স্থলবন্দরের কার্যক্রম। আমদানি-রফতানি বাণিজ্যে পড়বে বিরূপ প্রভাব। এমনিতেই বেনাপোল বন্দরে যানজট লেগেই থাকে। লম্বা ছুটির কারণে অনেক শিল্প প্রতিষ্ঠানে কাঁচামালের সংকট দেখা দিতে পারে।

সীমান্তের দু’পাশের ট্রাকজট আরও বাড়বে বলে মনে করছেন বন্দর সংশ্লিষ্টরা। তবে এ ছুটিতে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে পাসপোর্টযাত্রী চলাচল স্বাভাবিক থাকবে। খোলা থাকবে ঈদের দিন বাদে প্রতিদিন কাস্টমস হাউজ।

বেনাপোলের সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, ২২ জুন বিকাল থেকে বন্ধ হয়ে গেছে বেনাপোল-পেট্রাপোলের মধ্যে আমদানি-রফতানি। আগামী ২৮ জুন থেকে পুনরায় আমদানি-রফতানি কার্যক্রম চলবে বলে তিনি জানান।

ভারতের পেট্রাপোল বন্দর সি অ্যান্ড এফ ওয়েলফেয়ার স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক কার্ত্তিক চক্রবর্তী জানান,বেনাপোলের মতোই পেট্রাপোলেও ট্রাকজট রয়েছে।

তিনি বলেন, বন্দরে স্থান সংকুলান না হওয়ায় বন্দরের ট্রাক টার্মিনাল, পেট্রাপোল পার্কিং ও বনগাঁও টার্মিনালে কয়েকশ’ পণ্য বোঝাই ট্রাক বেনাপোলে প্রবেশের জন্য অপেক্ষা করছে।

দীর্ঘ ছুটির কারণে এসব পণ্য পেট্রাপোল থেকে বেনাপোল বন্দরে ঢুকবে ছুটি শেষে। এতে পেট্রাপোল বন্দরসহ বেনাপোল বন্দর এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হবে।

বেনাপোল কাস্টম হাউজের ডেপুটি কমিশনার মারুফুল ইসলাম বলেন, এবার এ ঈদে আমাদের কাস্টমস হাউজে ছুটি বাতিল করা হয়েছে। শুধুমাত্র ঈদের দিন ছুটি থাকছে।

কিন্তু কাস্টমস হাউজ খোলা রাখলেও কোন আমদানিকারক বা সিএন্ডএফ এজেন্টরা কাজ না করায় আমাদের অলসভাবে সময় কাটাতে হবে।
আগামী ২৮ জুন থেকে আবারো কর্মচাঞ্চল্য ফিরে আসবে এ বন্দরে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here