ট্যাক্স কেন দেব?

0
227

এ.আর. খান রানা : নাগরিক হিসেবে আমরা খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিত্সাসহ নানা রকম সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে থাকি রাষ্ট্রের কাছ থেকে। আমাদের ভোগকৃত এ সব অধিকার ও সুযোগ-সুবিধা নিয়ে একটুখানি ভাবলেই আমরা বুঝতে পারি যে, রাষ্ট্রের কাছ থেকে আমাদের যেমন সুযোগ-সুবিধা ভোগের অধিকার রয়েছে, ঠিক তেমনি রাষ্ট্রের প্রতি আমাদের বেশ কিছু দায়িত্ব এবং কর্তব্যও রয়েছে। একটি উদাহরণ দিলে বিষয়টি অনেকটা পরিষ্কার হবে। যেমন, আমি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা সম্পন্ন করেছি সম্পূর্ণ সরকারি খরচে। ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক ; ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষা সম্পন্ন করতে আমার ব্যয় হয়েছে মাত্র টাঃ ৪,৭৫০/= (চার হাজার সাতশত পঞ্চাশ) টাকা। তাহলে প্রশ্ন ওঠা খুবই স্বাভাবিক যে বাকি অর্থের যোগানদাতা কে। শুধু তাই নয়, জীবনযাত্রা ও আরাম-আয়েশের জন্য আমরা রাষ্ট্রীয় অনেক সম্পদ ব্যবহার করে থাকি। যেমন, বড় বড় রাস্তা দিয়ে গাড়ি চালাই, ট্রেনে চড়ে ঘুরে বেড়াই, নামি-দামি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়া করি, বড় বড় ব্রিজ, বিমানবন্দর ইত্যাদি ব্যবহার করি। সরকারি হাসপাতাল থেকে বিনামূল্যে চিকিত্সা সেবা নিয়ে থাকি। সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে একেবারেই নাম মাত্র খরচে শিক্ষার সুযোগ নিয়ে থাকি। এসব আসে কোত্থেকে?

আমাদের মনে রাখা উচিত, কোনো একটি দেশের সরকারি সম্পদ ওই দেশের জনগণই ভোগ বা ব্যবহার করে থাকে। অর্থাত্ রাষ্ট্রীয় সম্পদ জনকল্যাণেই ব্যয় হয়ে থাকে। কাজেই সেই সম্পদ ভোগ করার যেমন ওই দেশের মানুষের অধিকার রয়েছে ঠিক তেমনি সেই সব সম্পদ সংরক্ষণ ও রক্ষার দায়িত্বও সে দেশের প্রতিটি মানুষের। আমাদের আরো মনে রাখা উচিত যে, কোনো দেশের যে কোনো ধরনের সম্পদ সৃষ্টি, সংরক্ষণ ও রক্ষায় কোনো না কোনোভাবে ওই দেশের প্রতিটি মানুষের অবদান রয়েছে। আগেই উল্লেখ করেছি যে, আমার শিক্ষা জীবনে ব্যয় হয়েছে টাঃ ৪,৭৫০/= (চার হাজার সাতশত পঞ্চাশ) টাকা। আসলে আমার পেছনে সরকার ব্যয় করেছে বিপুল পরিমাণ অর্থ। আর সেই অর্থ এসেছে এ দেশের কামার, কুমার, তাঁতি, জেলে, পরিচ্ছন্ন কর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষের কাছ থেকে। অর্থাত্ এদেশের প্রতিটি মেহনতী মানুষের ঘাম জড়িয়ে আছে আমার জীবনের সাথে। সহজ করে বলতে গেলে বলতে হয়, আমার শিক্ষার পেছনে যে অর্থ ব্যয় হয়েছে তা বহন করেছে সরকার। আর সরকার সেই অর্থের সিংহ ভাগ আহরিত হয়েছে এ দেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছ থেকে ট্যাক্স আদায়ের মাধ্যমে।

কাজেই খুব সহজেই অনুমেয় যে, সরকার আমাদের কল্যাণে যে অর্থ ব্যয় করে থাকে, এ দেশের সর্বস্তরের মানুষ তার উল্লেখযোগ্য অংশ যোগান দিয়ে থাকে ট্যাক্স প্রদানের মাধ্যমে। তাই সঠিকভাবে ট্যাক্স প্রদান করা আমাদের প্রতিটি নাগরিকের নৈতিক দায়িত্ব ও কর্তব্য। একজন তরুণ আয়কর আইনজীবী হিসেবে মনে করি আমাদের প্রতিটি নাগরিকের দেশও মানুষের কল্যাণে যথাযথভাবে ট্যাক্স প্রদান করা উচিত।

ট্যাক্স সরকারের আয়ের অন্যতম প্রধান উত্স। ট্যাক্স প্রদানকারীকে ট্যাক্স প্রদানের সহজ পথ প্রদর্শন করে ট্যাক্স প্রদানে উদ্বুদ্ধ করা প্রত্যেক নাগরিকের দায়িত্ব। আসুন আমরা নিজে ট্যাক্স দেই, অন্যকে ট্যাক্স দিতে অনুপ্রাণিত করি। নিয়মিত ট্যাক্স দিয়ে দেশের অর্থনৈতিক বুনিয়াদকে মজবুত করি এবং ট্যাক্স প্রদানকারীকে ট্যাক্স প্রদানের সহজ পথ প্রদর্শন করি। কারণ আমাদের দেয় ট্যাক্সের অর্থ ব্যয় হবে আমাদেরই কল্যাণে।লেখক :তরুণ আয়কর আইনজীবী

ও সি ই ও, খান অ্যাসোসিয়েটস্

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here