ডাক্তার সঙ্কটে নিজেই অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে কেশবপুর উপজেলা ৫০ শয্যার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

0
345

শেখ শাহীন,কেশবপুব,যশোর : ডাক্তার সঙ্কটের কারনে নিজেই অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে কেশবপুর উপজেলা ৫০ শয্যার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি । স্বাস্থ্য সেবা বঞ্চিত হচ্ছে প্রতিদিন দূর দুরান্ত থেকে আসা শত শত রোগী। এ ছাড়া হাতে গোনা যাও ডাক্তার আছে তারাও অন্যত্র বদলী হওয়ার জন্য বিভিন্ন স্থানে দেন দরবার করে চলেছেন।
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিতে ২২ জন ডাক্তার থাকার কথা থাকলেও বর্তমানে ১১ জন ডাক্তার কর্মরত আছেন। তাদের মধ্যে ৫/৬ জন ডাক্তার চিকিৎসা সেবা দেয়ার জন্য চেম্বারে থাকেন। ডাক্তার সঙ্কটের কারনে বাধ্য হয়ে রোগী নিয়ে ক্লিনিকে ভর্তি করাতে হচ্ছে । রোগী মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে। এখানে কর্মরত রয়েছেন ডাক্তার সাবেরা শারমিন, বোরহান উদ্দিন চৌধুরী, তৌফিকুর রহমান, তন্ময় বিশ্বাস, আর এমও আজিজুর রহমান লিটু, আহসান মিজান রুমি, রিপন রায়, অঞ্জলী রায়, পলাশ দে, তহিদুল ইসলাম ও প্রিয়ব্রত রায়। এদের মধ্যে আর এম ও ডাক্তার আজিজুর রহমান লিটু ইতোমধ্যে ফরোয়াডিং নিয়ে সাতক্ষীরাতে বদলী হচ্ছেন। ডাক্তার অঞ্জলী রায় কেশবপুর ও মনিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সপ্তাহে ৩ দিন করে দায়ত্ব পালন করে থাকেন। ডাক্তার রিপন রায় ঢাকায় ট্রেনিং এ আছেন। সব মিলিয়ে কেশবপুরের প্রায় ৩ লাখ মানুষের স্বাস্থ্য সেবা এখন ঝুঁািকর মধ্যে। কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি যশোর খুলনা এবং সাতক্ষীরা জেলার মধ্যবর্তৃী হওয়ায় এখানে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর সংখ্যা বেশি। প্রতিদিনই শত শত রোগী চিকিৎসা সেবা নিতে এসে সেবা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে। এ ছাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিতে যাবতীয় পরীক্ষা নিরীক্ষার ব্যবস্থা থাকলেও ডাক্তাররা সিন্ডিকেট গড়ে তুলে একটি প্যাথলজিতে রোগী পাঠিয়ে সেখান থেকে মোটা অঙ্কের কমিশন আদায় করে চলেছে বলে অভিযোগ রয়েছে।
রোগীদের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতে যে মুহুর্ত্বে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী ডাক্তারদের নিজ নিজ এলাকায় চাকুরীর ব্যবস্থা করেছেন সে মুহুর্ত্বে ডাক্তার শুন্যতা কোন অবস্থাতেই মেনে নিতে পারছেন না সচেতন মহল। ভারপ্রাপ্ত ইউ এইচ এফ ও ডাক্তার শেখ আবু শাহীন দায়িত্বে আসার পর থেকে এখানে লেজে গোবরে অবস্থা বিরাজ করছে বলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। স্থানীয় এমপি জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক কেশবপুর বাসীর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতে ডাক্তার সঙ্কট কাটিয়ে ওঠার পর আবারও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটির বর্তমান দৈন্য দশার জন্য অদক্ষ ভারপ্রাপ্ত ইউ এইচ এফ ও কে দুষছেন সচেতন মহল। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এ দশা কাটিয়ে উঠতে অবিলম্বে একজন ইউ এইচ এফ ও নিয়োগসহ প্রয়োজনীয় ডাক্তার সরবরাহের দাবি জানিয়েছেন সচেতনমহল। এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত ইউ এইচ এফ ও ডাক্তার শেখ আবু শাহীন ডাক্তার সঙ্কটের কথা স্বীকার করে বলেন, অপারেশন সহ পরীক্ষা নিরীক্ষার কাজ করা হয়ে থাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here