ঢাবির ভিসি প্যানেল স্থগিত

0
398

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য নিয়োগে তিন সদস্যের ভিসি প্যানেলের কার্যক্রম স্থগিত করেছে আপিল বিভাগ। একইসঙ্গে ভিসি নির্বাচিত না হওয়া পর্যন্ত বর্তমান ভিসি তার দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এছাড়া আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে এ সংক্রান্ত জারি করা রুল নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন।

গত ২৯ জুলাই ভোট ছাড়াই উপাচার্য প্যানেল চূড়ান্ত করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট। সভায় বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক কামাল উদ্দিন, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও নীল দলের আহ্বায়ক আবদুল আজিজের প্যানেল পাস হয়।

রেজিস্ট্রার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্ধারণ না করে সিনেটে উপাচার্য প্যানেল মনোনয়নের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে আসছে বিএনপি ও বামপন্থি শিক্ষক ও ছাত্ররা। গত ২৯ জুলাই অনুষ্ঠিত ওই বিশেষ সিনেট অধিবেশন স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টেও রিট করা হয়। হাইকোর্ট থেকে ওই সিনেট অধিবেশন স্থগিত করা হয়। তবে হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ স্থগিত করে চেম্বার আদালত। একইসঙ্গে এ বিষয়ে শুনানির জন্য ৩০ জুলাই দিন ধার্য করে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয় আদালত। পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে আজ ওই বিষয়টির শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আব্দুল মতিন খসরু ও এফএম মেজবাহ উদ্দীন। রিটকারীদের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ।

আদালত সূত্রে জানায়, গত ২৪ জুলাই ঢাবির উপাচার্য প্যানেল মনোয়নের জন্য ২৯ জুলাই ডাকা সিনেটের বিশেষ অধিবেশনের ওপর স্থগিতাদেশ দেয় হাইকোর্ট। একইসঙ্গে রুলও দিয়েছে আদালত। রুলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আদেশ ১৯৭৩ সালে ২০ (১) ধারা অনুযায়ী সিনেট গঠন না করে ২৯ জুলাই ডাকা সভা কেন আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে।

সিনেটে রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচনের আগে উপাচার্য প্যানেলের নির্বাচন দেয়ায় অধিবেশন ডাকায় ঢাবির শিক্ষকসহ রেজিস্ট্রার গ্র্যাজুয়েটে ১৫ জন হাইকোর্টে রিটটি করেন।

ঢাবির বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ২৪ আগস্ট। ২০০৯ সালের ১৫ জানুয়ারি উপাচার্য হিসেবে সাময়িক সময়ের জন্য নিয়োগ পেয়ে দীর্ঘ আট বছর ধরে এ দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

জানা গেছে, গত ১৬ জুলাই ঢাবির রেজিস্ট্রার একটি চিঠি দেন সিনেট সভার জন্য। যাতে বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আদেশ, ১৯৭৩ আর ২১ (২) ধারার অর্পিত ক্ষমতাবলে উপাচার্য ২৯ জুলাই বিকাল চারটায় সিনেটের বিশেষ সভা আহ্বান করেছেন। উক্ত বিশেষ সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আদেশ ১৯৭৩, ১১ (১) ধারা অনুযায়ী আচার্য কর্তৃক উপাচার্য নিয়োগের জন্য তিনজনের একটি প্যানেল মনোনয়ন করা হবে। উপাচার্যের প্যানেলে যাদের নাম অন্তর্ভূক্ত করার জন্য প্রস্তাব করা হবে, নাম প্রস্তাবকালে তাদের লিখিত সম্মতি সিনেট চেয়ারম্যানের নিকট পেশ করতে হবে।

রিটকারীরা হলেন- বরিশালের আনোয়ার হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আব্দুস সামাদ, অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম, অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রাব্বানী, অধ্যাপক ড. হারুনুর রশিদ খান, অধ্যাপক ড. সিতেশ চন্দ্র বাচার, অধ্যাপক ড. সৈয়দ মোহাম্মদ শামসুদ্দিন, অধ্যাপক ড. সৈয়দ হুমায়ুন আখতার, অধ্যাপক ড. মো. আসাদুজ্জামান, সহকারী অধ্যাপক মো. আব্দুর রহিম, অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী, অধ্যাপক ড. কেএম সাইফুল আলম খান, ঢাকার একেএম আতিকুর রহমান, ফরিদপুরের ড. আব্দুল জব্বার মিয়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সহযোগী অধ্যাপক মো. হুয়ায়ুন কবির।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here