তারুণ্যেই বাজিমাত

0
258

কনফেডারেশনস কাপের নতুন চ্যাম্পিয়ন জার্মানি

ক্রীড়া ডেস্ক: তাঁদের বেশির ভাগের বয়সই ২১ বছরের নিচে। এই বয়সে কনফেডারেশনস কাপ জয়, যেটা আবার জার্মানির ইতিহাসে প্রথম। তরুণদের শিরোপার উচ্ছ্বাসটা বুঝি এমনই হয়! l রয়টার্স
গত পরশু রাতটা কেমন কেটেছে মার্সেলো দিয়াজের? আক্ষেপ করেছেন হয়তো বারবার, সেই আক্ষেপের যন্ত্রণায় ঘুমটাও ভালো হওয়ার কথা না। শুধু পরশু নয়, গতকাল, আজ, এমনকি আগামী কয়েকটা দিনও এমন কাটতে পারে চিলিয়ান এই মিডফিল্ডারের। তাঁর ভুলেই তো ১-০ গোলে জিতে কনফেডারেশনস কাপটা নিয়ে গেল জার্মানি। আর এত দূর এসেও চিলি ফিরল শূন্য হাতে!
ভুলটা করেছিলেন ব্রাভোর সতীর্থ দিয়াজ। যে ভুলে সামনে ফাঁকা পোস্ট পেয়ে গেলেন জার্মানির স্টিন্ডল l ছোট্ট একটা ভুল। ম্যাচের ২০ মিনিটে চিলির ডি-বক্সের একেবারে সামনে দিয়াজের পায়ে বল, জার্মান মিডফিল্ডার লারস স্টিন্ডল এগিয়ে গেলেন তাঁর দিকে। সেই চ্যালেঞ্জ এড়াতে বল নিয়ে ঘুরলেন ডিয়াজ। পেছনেই থাকা জার্মান ফরোয়ার্ড টিমো ভেরনার কেড়ে নিলেন বলটা। সামনে তখন শুধু চিলির গোলরক্ষক ক্লদিও ব্রাভো। ভেরনার নিজেই হয়তো গোল করতে পারতেন। কিন্তু ঝুঁকি নিলেন না। ব্রাভোকে নিজের দিকে টেনে নিয়ে শেষ মুহূর্তে ভেরনার বল দিলেন স্টিন্ডলকে। কুমিরের মতো হাঁ করে থাকা জালে আয়েশে বল পাঠিয়ে দিলেন স্টিন্ডল। ম্যাচের শেষ পর্যন্তও ওই গোলটাই দুই দলের মধ্যে ব্যবধান হয়ে রইল।
পুরস্কার হাতে ড্রেক্সলার, ব্রাভো ও ভেরনার l অথচ এর আগ পর্যন্ত তো বটেই, গোলের পরও জার্মান গোলমুখে একের পর এক আক্রমণ করে গেছে চিলি। বিশেষ করে গোলটি হওয়ার আগে তো চিলির আক্রমণে অস্থির হয়ে পড়েছিল জার্মান রক্ষণ। আসলে সেন্ট পিটার্সবার্গে পরশু রাতে সাধ্যমতো সবই করল চিলি, শুধু গোলটাই পেল না। দিন শেষে তাই সত্যি হলো গ্যারি লিনেকারের সেই বিখ্যাত কথাটাই, ‘ফুটবল হচ্ছে এমন একটা খেলা, যেখানে ২২ জন মিলে খেলে এবং শেষ পর্যন্ত জার্মানি জেতে।’ পরপর দুটি কোপা আমেরিকার ফাইনালে চিলি আর্জেন্টিনাকে হারিয়েছে টাইব্রেকারে। কিন্তু এ দিন আর লাতিন চ্যাম্পিয়নদের টাইব্রেকার পর্যন্ত যাওয়ার সুযোগই দিল না জার্মানি।

এই দলটাকে অবশ্য ঠিক ‘আসল’ জার্মানি বলা হবে কি না, তা নিয়ে বিতর্ক হতে পারে। নয়্যার, বোয়াটেং, হামেলস, ক্রুস, খেদিরা, ওজিল, মুলারদের বিশ্রাম দিয়েছেন জার্মান কোচ জোয়াকিম লো। এত বড় একটা টুর্নামেন্ট খেলতে প্রায় ‘বি’ দল নিয়ে চলে এসেছেন বলে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে তাঁকে অনেক সমালোচনাও শুনতে হয়েছে। গত শুক্রবার স্পেনকে হারিয়ে অনূর্ধ্ব-২১ ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছে জার্মানির যে দলটা, লোর দলের আটজন সেই দলেও থাকতে পারেন! চিলির এই দলটার গড় বয়স যেখানে ৩০, জার্মানির মাত্র ২৪। ৩৫ ম্যাচ খেলা ২৩ বছর বয়সী জার্মান অধিনায়ক ইউলিয়ান ড্রাক্সলারই এই জার্মানির সবচেয়ে অভিজ্ঞ খেলোয়াড়! লোর সেই তরুণ জার্মানিই শেষ পর্যন্ত বাজিমাত করে দিল।

চারটি বিশ্বকাপ, তিনটি ইউরোর পরে এই প্রথম কনফেডারেশনস কাপ। অনভিজ্ঞ দল নিয়ে এত বড় সাফল্য বলেই যেন আনন্দটা আরও বেশি লোর, ‘অবিশ্বাস্য! আমরা মাত্র সাড়ে তিন সপ্তাহ ধরে একসঙ্গে আছি।’ কোচের চেয়ে বেশি উচ্ছ্বসিত মনে হয়েছে অধিনায়ক ড্রাক্সলারকে, ‘এই টুর্নামেন্টের আগে আমরা একসঙ্গে খুব বেশি খেলিনি। এ কারণেই এটা আমাদের কাছে আরও বিশেষ কিছু। এখন আমরা একটা বিশাল ছুটিতে যাব। ইচ্ছে করছে এই ট্রফিটাও সঙ্গে নিয়ে যেতে।’

চিলির খেলোয়াড়েরা ছুটিতে গেলেও অবশ্য এই বিষাদ কাটিয়ে উঠতে সময় লাগবে। বিশেষ করে দিয়াজের। চিলি কোচ হুয়ান আন্তোনিও পিজ্জি কিন্তু সাধ্যমতো সান্ত্বনা দিয়ে যাচ্ছেন তাঁর মিডফিল্ডারকে, ‘এটা ওর দোষ নয়। ভুল হতেই পারে। দলের অন্য সবার মতো সেও খুবই বিমর্ষ। আমরা সবাই ওর পাশে আছি।’ এএফপি, রয়টার্স।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here