তালার শালিখা বাজারে চোরদলের তান্ডব : কোটি টাকার মালামাল চুরি

0
134

বি. এম. জুলফিকার রায়হান : তালার খেশরা ইউনিয়নের শালিখা বাজারে একযোগে ১৪ দোকানে তান্ডব চালিয়েছে সংঘবদ্ধ চোরচক্র। চোরেরা দোকানের তালা ভেঙ্গে নগদ টাকা ও মালামাল সহ প্রায় কোটি টাকার সম্পদ নিয়ে পালিয়েছে। এছাড়া, দোকানের মধ্যেকার ক্যাশবক্স ভাংচুর এবং মূল্যবান জিনিসপত্র তছনছ করেছে। শনিবার (৩০ জানুয়ারি) গভীর রাতে সংঘবদ্ধ চোরের দল চুরি করে, পরদিন (রোববার) ভোরে বিষয়টি জানাজানি হয়।

শালিখা বাজারের ব্যবসায়ী ও সাংবাদিক এস.আর. আওয়াল জানান, শালিখা বাজারে শতাধিক ছোট-বড় দোকান রয়েছে। এই বাজারের নামমাত্র একটি কমিটি থাকলেও তার শক্তিশালী কোনও কার্যক্রম নেই। এমনকি এখানে রাতে পাহারাদারের ব্যবস্থাও নেই। যে কারনে চোরচক্র নির্ভিগ্নে ১৪টি দোকান থেকে চুরি করে পালাবার সুযোগ পেয়েছে।

তিনি জানান, চোরচক্র তালা ভেঙ্গে তার নিজের ওষুধের দোকান এবং বাজারের সভাপতি সাজ্জাত হোসেন সরদারের সার-কীটনাশকের দোকান, আবু হাসানের ইলেকট্রনিক্সের দোকান, আরিফুল ইসলাম খোকনের ভ্যারাইটিস স্টোর, জহুরুল ইসলামের মোবাইলের দোকান, মনিরুলের মুদিখানা দোকান, লিটনের চায়ের দোকান, আসাদুলের ফ্লেক্সিলোডের দোকান, বিশ্বজিৎ সেনের মুদিখানা দোকান, আনারুলের ফলের দোকান, আলিমুদ্দীন গাজীর কম্পিউটারেরর দোকানসহ ১৪টি দোকান থেকে নগত টাকা ও মালামালসহ প্রায় কোটি টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। এছাড়া চোরচক্র দোকানের ভিতরকার সব ক্যাশবক্স এবং আলমারীর ভাংচুর ও মালামাল তছনছ করে।

বাজারের চায়ের দোকানদার আরিফুল ইসলাম খোকন বলেন, আমিসহ অনেক দোকানদার মিলে বহুবার বাজার কমিটির কাছে বাজারে নৈশ প্রহরী নিয়োগের আবেদন নিবেদন করলেও তারা কর্ণপাত করেননি।

রোববার সকালে শালিখা বাজারে গিয়ে দেখা যায়, ক্ষতিগ্রস্থ অনেক দোকানদার রাস্তার উপর বসে অঝোরে কাঁদছেন। প্রায় সর্বশান্ত হওয়া ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে প্রশাসনের কাছে চোর শনাক্ত সহ ক্ষতিপূরণের দাবি জানান।

এবিষয়ে তালা থানার ওসি মো. মেহেদি রাসেল বলেন, চুরির সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। এছাড়া চোরচক্র আটক সহ চোরাই মালামাল উদ্ধারে তৎপরতা শুরু করা হয়েছে।