তালা উপশহরে এক দরিদ্র ব্যক্তির ৬০ বছরের পুরান ভিটে বাড়ির জমি দখল চেষ্টার অভিযোগ

0
285

তালা প্রতিনিধি : তালা উপ-শহরের মোহাম্মাদ আলী শেখ এর ভোগ দখলীয় প্রায় ৬০ বছরের বাস্তভিটার জমি জোর দখল করতে বারুইহাটি গ্রামের মাসুদুর রহমান সুমন ওই জমি দখল করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। দূর্বৃত্তরা বিভিন্ন সময় জমি দখল চেষ্টার সাথে এবার এলাকার জনপ্রিয় জনপ্রতিনিধি এবং দরিদ্র মোহাম্মাদ আলীর পক্ষের লোকদের সামাজিক ও প্রশাসনিক ভাবে হয়রানী করতে নানাবিধ অপপ্রচার সহ চক্রান্ত শুরু করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

তালা সদরের মৃত আব্দুল মজিদ শেখ ওরফে পাগল শেখ এর ছেলে মোাহাম্মাদ আলী শেখ জানান, ব্যক্তিগত কোন জমি জায়গা না থাকায় ফুফুর পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া তালা মৌজার ৪৪২ নং ডিপি খতিয়ানের ২৫১৫৮ নং হাল দাগের ৮ শতক জমি মোহাম্মাদ আলীকে দেন। সেই জমি পেয়ে প্রায় ৬০ বছর পূর্বে মোহাম্মাদ আলী সেখানে বসত ঘর নির্মান করে বসবাস করতে থাকে। একই সাথে জমি দাতা অসহায় ওই ফুফু মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মোহাম্মাদ আলীর উক্ত বাড়িতে থাকতো। দীর্ঘ বছর উক্ত জমিতে বসতঘর নির্মান করে ভোগদখলের পাশাপাশি মোহাম্মাদ আলী উক্ত ৮ শতক জমি নিজ নামে মাঠ জরিপ করা সহ সরকার বাহাদুরকে অদ্যবদী খাজনা প্রদান করে আসছে। এছাড়া তালা সদর ইউনিয়ন পরিষদে বাড়ির জন্য তিনি নিয়োমিত ট্যাক্স প্রদান করে করছে।

মোহাম্মাদ আলীর অভিযোগ, ১৯৯২ সালে বারুইহাটি গ্রামের আব্দুস সবুর মোড়ল উক্ত জমি তার দাবী করে দখল নেবার চেষ্টা করে। এনিয়ে তালা সদর ইউনিয়ন পরিষদে অভিযোগ দায়ের করলে তৎকালীন চেয়ারম্যান অ্যাড. আব্দুর রহমান দীর্ঘ শুনানী শেষে মোহাম্মাদ আলীর পক্ষে রায় দিলে আব্দুস সবুর মোড়ল জমি দখল চেষ্টা থেকে বিরত হয়। কিন্তু সম্প্রতি সময়ে সবুর মোড়লের পুত্র মাসুদুর রহমান সুমন এবং ইমন মোড়ল জোরকরে ওই বসতঘর দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। এমনকি সে স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে কতিপয় ভাড়াটিয়া দূর্বৃত্তদের সাথে নিয়েও দরিদ্র মোহাম্মাদ আলীর ভিটে বাড়ি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে।

মোহাম্মাদ আলী আরো বলেন, তার মাটির তৈর বসত ঘর নষ্ট হয়ে যাওয়ায় বিভিন্ন এনজিও থেকে কিস্তির টাকা নিয়ে এবং ছেলের জমানো কষ্টের টাকা দিয়ে সেখানে গত ৫ মার্চ একটি ইটের ঘর নির্মান কাজ শুরু করে। এসময় পুলিশের সহযোগীতা নিয়ে সুমন এবং তার ভাই ইমন ঘর নির্মান বন্ধ করে দিতে আসে। সেই থেকে অদ্যবদী সেখানে ঘর নির্মান বন্ধ থাকায় বর্তমানে অন্যের ঘরে বসবাস করছে মোহাম্মাদ আলীর গোটা পরিবার।

এদিকে ওই জমি দখল চেষ্টা এবং ঘর নির্মান বন্ধ করে দেয়ার পর সুমন গং পরিকল্পিত ভাবে স্থানীয় জনপ্রিয় ও তরুন ইউপি সদস্য মীর শামসুজ্জোহা আকবর কল্লোল এর নামে নানারুপ অপপ্রচার চালিয়ে তাকে সামাজিক ক্ষতিসাধন ও প্রশাসনিক ভাবে হয়রানী করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলেও মোহাম্মাদ আলী জানান।

এবিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মীর কল্লোল বলেন, মোহাম্মাদ আলী শেখ সেখানে প্রায় ৬০ বছর ধরে বসত ঘর নির্মান করে বসবাস করে আসছে। কিন্তু বারুইহাটি গ্রামের সুমন মোড়ল উক্ত বসতঘর দখলের চেষ্টা করলে সেখানে বিরোধ সৃষ্টি হয়। গত ৫ মার্চ মোহাম্মাদ আলীর শেখের ঘর নির্মান করাকে কেন্দ্র করে বিরোধ সৃষ্টি হয় এবং তালা থানার অফিসার-ইন-চার্জ (তদন্ত) মনজুরুল হাসান মাসুদ ঘটনাস্থলে আসে। এসময় তিনি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমাকে ডেকে নেন। কিন্তু পরবর্তিতে একটি মহল রাজনৈতিক ও সামাজিক ভাবে আমাকে হেয় করা সহ প্রশান দিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ করতে অপপ্রচার চালাচ্ছে। যা’ খুবই দু:খজনক বলেও মীর কল্লোল মন্তব্য করেন।

এদিকে, অর্ধশতাধিক বছরের বেশি সময় ধরে বসবাস করা বাস্ত ভিটার জমি জোর দখলরোধে দরিদ্র ও ভূক্তভোগী মোহাম্মাদ আলী শেখ সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপার, তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও তালা থানার ওসিসহ সংশ্লিষ্টদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here