দক্ষিণ-পশ্চিমের এমপিদের আমলনামা তৈরি হচ্ছে

0
275

মিজানুর রহমান তোতা : আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রাথমিক কর্মকান্ড মাঠপর্যায়ে বেশ জোরেশোরে শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ। তারা দলীয়ভাবে আসনভিত্তিক তথ্য উপাত্ত বিভিন্নপন্থায় সংগ্রহ করছে। বর্তমান এমপির জনপ্রিয়তা কেমন, প্রতিদ্ব›িদ্বতাপুর্ণ নির্বাচন হলে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকবে কিনা, দলে তার অবস্থান কি, তৃণমুলের মতামত কেমন, জনপ্রিয়তা হারালে কোন আসনে কাকে বিকল্প প্রার্থী করা যায়, দ্বিতীয় বিকল্প এবং তৃতীয় বিকল্প প্রার্থীর নাম পরিচয়, অতীত ইতিহাসসহ যাবতীয় তথ্যাদি সংগ্রহ হচ্ছে। দলীয়ভাবে ছাড়াও বর্তমান এমপিদের আমলনামা তৈরী করা হচ্ছে সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে। ইতোমধ্যে গোয়েন্দাদের ফিল্ড অফিসাররা মাঠে নেমেছেন। যশোর, খুলনা, ঝিনাইদহ, মাগুরা ও নড়াইলসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলার মাঠে কর্মরত একাধিক গোয়েন্দা কর্মকর্তা ও আওয়ামী লীগের দলীয় দায়িত্বশীণ সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, বর্তমান এমপিদের গত ৩ বছরের কর্মকান্ড, দলের জন্য কতটুকু সময় ব্যয় করেছেন তারা, দুর্নীতি থাকলে কোন খাতে কিভাবে কি পরিমাণ দুর্নীতি হয়েছে, মাঠের সাধারণ নেতা কর্মী ও সমর্থকদের সাথে কেমন আচরণ ছিল, কোন এমপির বিরুদ্ধে পত্রপত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হলে তার কাটিং ও ওভারঅল জনপ্রিয়তা কি পর্যায়ে তা তদন্ত সাপেক্ষে ফিল্ড অফিসারের মতামত দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যশোর, খুলনা ও ঝিনাইদহসহ বেশ কয়েকটি আসনের এমপির আমলনামা গোয়েন্দা সংস্থার হেড অফিসে পাঠানো হয়েছে বলে সূত্র উল্লেখ করে। যশোরের একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান, বেশ আগে থেকেই এই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কিছু আসনের রিপোর্ট অলরেডি প্রধানমন্ত্রীর হাতে পৌছে যাবার কথা। এটা তো চলমান প্রক্রিয়া। নির্বাচনের মনোনয়নের আগ পর্যন্ত চলবে। চেক ক্রস চেক হবে। প্রাথমিক তথ্য ভুলও হতে পারে। সেজন্যই ওটি করা হবে। তার কথা, এমপি ছাড়াও ক্ষমতাসীন দলের পদপদবীধারী কিংবা দলের নাম ব্যবহার করে প্রভাবশালী কেউ দুর্নীতি করে দলের ভাবমুর্তি নষ্ট করেছে কিনা তদন্তে এটিও দেখা হচ্ছে। তবে এমপিদের বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। শুধু এমপি নন, এমপি পরিবারের কোন সদস্যের কর্মকান্ডে দলের ভাবমুর্তি নষ্ট হয়েছে কিনা সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
দক্ষিণ-পশ্চিমে কোন কোন আসনের এমপির জনপ্রিয়তা তলানীতে-এ প্রশ্নের জবাব দিতে অপারগতা প্রকাশ করে গোয়েন্দা সুত্রটি জানায়, মোদ্দা কথা আমাদের কাছে যে খবর আছে তাতে বেশ কয়েকজন এমপি এবার কাটছাটের তালিকায় পড়বেন। এক্ষেত্রে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনায় এমনটি মনে হয়েছে, তাদের ব্যাপারে যত তদবির হোক না কেন গোয়েন্দা রিপোর্ট যাদের খারাপ তাদের কোনভাবেই দল মনোনয়ন দেবে না। সুত্রমতে, খুলনার ১জন, যশোরের ২জনসহ মোট ৬জন তো ইতোমধ্যে বিভিন্ন কারণে বøাকলিস্টেট হয়েছেন। যাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও জনবিচ্ছিন্নসহ বিভিন্ন ধরণের অভিযোগ রয়েছে। আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়, আমাদের সভানেত্রী এবার বেশ আগে থেকেই হুশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন। যারা গণমুখী নন, যারা জনপ্রিয়তা হারিয়েছেন, তাদের দল কোনভাবেই ছাড় দেবে না। মনোনয়নের তো প্রশ্নই ওঠে না। যাদের ক্লিন ইমেজ তাদের বেছে নিয়ে দল মনোনয়ন দেবে।
এদিকে, ইতোমধ্যে যশোরের বেশ কয়েকটি আসনে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী নতুন মুখ অথচ দলের জন্য নিবেদিত, ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা তারা ভোট রাজনীতির মাঠে নেমেছেন। আবার কোথাও কোথাও মৌসুমী পাখির আনাগোনা শুরু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here