দশটি জীবন অকারণে ঝরিয়া পড়ে নাই

0
378

দশটি তরতাজা জীবন তো আর এমনি এমনি ঝরিয়া পড়ে নাই। ইহার পিছনে নিশ্চিতভাবে কোনো না কোনো কারণ যেমন রহিয়াছে, তেমনি ইহার দায়দায়িত্বও কাউকে না কাউকে লইতে হইবে। এত মর্মান্তিক একটি ঘটনা ঘটিয়া গেল, বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতো মুহূর্তে খালি হইয়া গেল কতো মা, কতো স্ত্রী-সন্তানের বুক— অথচ কেহই ইহার দায়দায়িত্ব গ্রহণ করিতেছে না। চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানির এই অনুষ্ঠানস্থলটিতে যুগপত্ ঝুঁকি ও শৃঙ্খলার ঘাটতি যে ছিল— তাহা সংশ্লিষ্ট সকলেই স্বীকার করিতেছেন—অথচ কেহই ইহার দায় নিবেন না ইহা তো হইতে পারে না। তবে ভুক্তভোগী মাত্রই জানেন যে বিষয়টি দুর্ভাগ্যজনক হইলেও মোটেও অপ্রত্যাশিত নহে। বরং অপ্রিয় হইলেও সত্য যে দায়িত্ব এড়াইয়া যাইবার এই কাপুরুষোচিত মানসিকতাই যেন আমাদের চরিত্রের অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত হইয়াছে। অতএব, কেবল এইটুকু বলাই যথেষ্ট হইবে না যে ইহা নিন্দনীয়, বরং আমরা চাহিব সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করিয়া তাহাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হউক। উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হউক ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি ও পরিবারগুলিকে।

কীভাবে কী হইয়াছে— তাহার বৃত্তান্ত বিশদভাবে গণমাধ্যমে প্রচারিত ও প্রকাশিত হইয়াছে। ফলে ভুক্তভোগীদের পাশাপাশি দেশবাসীর নিকটও প্রতীয়মান হইয়াছে যে চট্টগ্রামের রীমা কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত মেজবানে যাহা ঘটিয়া গিয়াছে তাহা সর্বতোভাবে একটি ব্যবস্থাপনাগত ব্যর্থতারই বেদনাদায়ক উদাহরণ মাত্র। অতএব, এই আয়োজনের সহিত সংশ্লিষ্ট কোনো পক্ষই ইহার দায় এড়াইতে পারেন না। দায় কাহার কম, কাহার বেশি— সেই তর্কে আমরা যাইব না। বিষয়টি তদন্ত কমিটির এখতিয়ারভুক্ত। আমরা আশা করিব, জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে সত্য উদ্ঘাটিত হইবে এবং তাহা জনসমক্ষে দ্রুত প্রকাশ পাইবে। সর্বোপরি, আমরা বলিব যে প্রথমত, ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও জাকাতের কাপড় বিতরণসহ নানা উপলক্ষে এই ধরনের দুঃখজনক ঘটনার অভিজ্ঞতা আমাদের আছে। অতএব, ভবিষ্যতে ইহার পুনরাবৃত্তি যাহাতে না ঘটে তাহা নিশ্চিত করিতে হইবে। দ্বিতীয়ত, অবশ্যই উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দিতে হইবে ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যেকটি পরিবারকে। প্রশাসন এই ক্ষেত্রে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে ব্যর্থ হইলে ভুক্তভোগীরা আদালতের শরণাপন্ন হইতে পারেন।

কুলখানির মেজবানে অংশগ্রহণ করিতে গিয়া যেই দশটি মূল্যবান প্রাণ অকালে ঝরিয়া গেল, তাহাদের শোকসন্তপ্ত পরিবার ও স্বজনদের প্রতি আমরা গভীর সহানুভূতি ও সহমর্মিতা জানাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here