দ্বার খুলা হল চট্টগ্রামের বৃহত্তম ফ্লাইওভারের

0
248

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের বৃহত্তম উড়াল সড়ক ‘আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার’ যানবাহন চলাচলের জন্য দ্বার খুলে দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে মুরাদপুর থেকে লালখানবাজার পর্যন্ত ৫ দশমিক ২ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য ও ৫৪ ফুট প্রস্থের ফ্লাইওভারটির একপাশ খুলে দেওয়া হয়।

ঈদের পর যান চলাচলের জন্য পুরোপুরিভাবে উন্মুক্ত করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এটি উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) সূত্রে জানা যায়, আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারটি নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ৬৯৬ কোটি টাকা। এর মধ্যে মূল অবকাঠামো তৈরিতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৫০ কোটি টাকা এবং র‌্যাম্প ও লুপ তৈরির কাজে ব্যয় করা হবে ২৪৬ কোটি টাকা। কাজের মেয়াদকাল ২০১৮ সালের জুন মাস পর্যন্ত থাকলেও এর আগেই কাজ শেষ করা হয়।

ফ্লাইওভারটি মুরাদপুর এন মোহাম্মদ কনভেনশন সেন্টারের সামনে থেকে শুরু হয়ে জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের পশ্চিম গেটের সামনে হয়ে লালখানবাজারে এসে শেষ হয়েছে।

জানা যায়, গাড়ির চলাচলের সুবিধার্থে ফ্লাইওভারে ৬টি র‌্যাম্প নির্মিত হচ্ছে। এর মধ্যে ফ্লাইওভারের জিইসি মোড়ে হবে ৪টি র‌্যাম্প। সেখানে ওয়াসা থেকে জিইসি মোড়ের দিকের গাড়িগুলো জিইসি কনভেনশনের সামনে এবং মুরাদপুরের দিকে যাওয়া গাড়িগুলো ইফকো কমপ্লেক্সের সামনে থেকে ফ্লাইওভারে উঠতে পারবে। মুরাদপুর থেকে জিইসি মোড়ের দিকের গাড়িগুলো মেরিডিয়ানের সামনে নামতে পারবে এবং ওয়াসার দিকে যাওয়া গাড়িগুলো ব্লুজম গার্ডেনের সামনে থেকে উঠতে পারবে। ষোলশহর দুই গেট বায়েজিদ রোডের দিকে দুটি লুপ থাকবে। একটি দিয়ে যানবাহন আসবে, অপরটি দিয়ে যাবে।

সিডিএ’র চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, ঈদে যানজট কমাতে স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও ট্রাফিক বিভাগের অনুরোধে কাজের নির্ধারিত মেয়াদের আগেই ফ্লাইওভারটির একপাশ খুলে দেওয়া হয়েছে। পরীক্ষামূলকভাবে যান চলাচলের জন্য মুরাদপুর থেকে লালখানবাজার আসার বামপাশের দুই লেন খুলে দেওয়া হয়েছে। ঈদের পরে পুরোপুরি যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here