ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে শবে বরাত পালিত

0
66

নিজস্ব প্রতিবেদক : যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সারাদেশে পালিত হয়েছে মুসলমান ধর্মাবল্মীদের জন্য সৌভাগ্য ও ক্ষমার রাত পবিত্র শবে বরাত। মহান আল্লাহ তায়ালার রহমত লাভের আশায় ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা রাতভর মগ্ন ছিলেন ইবাদত বন্দেগিতে। মসজিদে মসজিদে দেশের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে দোয়া করা হয়।
হিজরি বর্ষের শাবান মাসের ১৪ তারিখ দিবাগত রাত সৌভাগ্যের রজনী। মহিমান্বিত এ রাতে মহান রাব্বুল আলামিন তাঁর বান্দাদের ভাগ্য নির্ধারণ করেন। ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা এ রাতে মহান আল্লাহর রহমত ও নৈকট্য লাভের আশায় নফল নামাজ, কোরআন তিলাওয়াত, জিকির-আজগারসহ বিভিন্ন ইবাদত বন্দেগী করে থাকেন।
ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ছিল মিলাদ মাহফিল ও বিশেষ মোনাজাত। এতে দেশের মঙ্গল কামনার পাশাপাশি মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনা করা হয়। খতিবরা পবিত্র শবে বরাতের গুরুত্ব ও তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা করেন। এশার নামাজের পর মোনাজাতে মুসলমানরা অতীতের গুনাহের কারণে সৃষ্টিকর্তার কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করেন। অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। এছাড়া করোনা মহামারি থেকে মুক্তির জন্য মোনাজাত করা হয়।
পবিত্র শবে বরাতে আতশবাজি ও পটকাবাজি নিষিদ্ধ করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। অন্যান্য বছরের চেয়ে এবছর আতশবাজি ছিল কম।
এছাড়া শবে বরাত উপলক্ষে রাজধানীসহ বিভিন্ন জায়গায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন দেখা গেছে।
পবিত্র শবে বরাত উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দেন।